নিউজ

রাজনৈতিক ঈর্ষাতেই মুক্তি পাচ্ছে না বাঘিনী! মুক্তির দাবিতে মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হলেন আরও একজন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কলকাতাঃ শহরে বাঘিনী ছবি মুক্তির দাবিতে এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বারস্থ হলেন আরও একজন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একজন বাস্তব জগতের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, এই অন্য মমতা হলেন রুপালি পর্দার। পর্দার মমতার একটাই আরজি, কলকাতার সিনেমা হলে ‘বাঘিনী’ ছবিটি দেখানাের ব্যবস্থা যেন করা হয়।বেশ কয়েক বছর ধরেই বাঘিনী ছবির মুক্তি নিয়ে টালবাহানা চলে আসছে।

Baghini is not being released due to political jealousy

লোকসভা নির্বাচনের আগেই এই ছবি মুক্তি পাবে বলে ঠিক হয়েছিল, কিন্তু কোন কারণে তা সম্ভব হয়নি। অবশেষে গতকাল, বড়দিনে ছবিটি মুক্তি পায়।কিন্তু সমস্যা হল, কলকাতার কোনও সিনেমা হলেই ছবিটি মুক্তি পায়নি। শহরতলির হল গুলিতেই কেবলমাত্র প্রদর্শিত হচ্ছে ‘বাঘিনী’। আর এতেই ক্ষুব্ধ কলাকুশলীরা।

আরও পড়ুন :  উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশের দিন ঘোষণা হল!কবে, কোথায় কীভাবে দেখা যাবে জানুন বিস্তারিত

পিংকি পালের দাবি, রাজনৈতিক ঈর্ষার কারণেই কি কলকাতার কোনও হল পাননি তাঁরা। ফলে শহরবাসী এই ছবি দেখা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন অনেকেই এই ছবি দেখতে আগ্রহী। কলকাতার হলে ছবি মুক্তির আরজি জানিয়েই তাই এদিন মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাড়ির সামনে হাজির হয়েছিলেন তাঁরা। পােস্টার-ব্যানার হাতে মমতার বাড়ির সামনে তাতে লেখা, ‘কলকাতায় অবিলম্বে বাঘিনী ছবির মুক্তি দেওয়া হােক। দিদি আপনি ব্যবস্থা নিন।’ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই সময় বাড়িতে ছিলেন না। তাঁর দেখা না পেয়ে কলাকুশলীরা তাঁর উদ্দেশ্যে একটি চিঠি জমা দেন মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে কর্তব্যরত পুলিশ অফিসারের হাতে। ওই পুলিশ অফিসার সেই চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর হাতে তুলে দেবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্কুল জীবন থেকে শুরু করে রাজনৈতিক জীবন, দলনেত্রী থেকে শুরু করে মুখ্যমন্ত্রীর দিক গুলি এই ছবিতে তুলে ধরা হয়েছে।ছবির প্রযোজক পিংকি পাল জানান,”এই ছবিতে বিরােধী দলগুলাের প্রতি কোনরকম খারাপ কিছু দেখানাে হয়নি। তবু রাজনৈতিক ঈর্ষার কারণে কলকাতার সিনেমা হলগুলােতে এই ছবির প্রদর্শন করা হচ্ছে না। শহরতলীর এবং অন্যান্য জেলার হলে ছবি মুক্তি পেলেও কলকাতাতে এই ছবির মুক্তি এখনাে পর্যন্ত হয়নি। এমনকি নন্দনে ছবির শো হচ্ছে না। তাই আমরা মমতাদির দ্বারস্থ হয়েছি।”

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button