নিউজ

CAA in Bengal: রাজ্যে ডিসেম্বরের মধ্যেই সিএএ লাগু হবে, মুখ্যমন্ত্রী সিএএ নিয়ে কিচ্ছু করতে পারবেন না

জানা গিয়েছে তৃণমূলের ১০০ জন দুর্নীতিগ্রস্ত নেতার তালিকা নাকি শুভেন্দু শাহের হাতে তুলে দিয়ে এসেছেন।

CAA in Bengal: রাজ্যে খুব শীঘ্রই সিএএ কার্যকর হবে। এই বছরের মধ্যেই অর্থাৎ ডিসেম্বরের মধ্যে লাগু হবে। ফের সিএএ (CAA) কার্যকর করা নিয়ে সরব হলেন বিজেপি (BJP) বিধায়ক অসীম সরকার। চলতি বছরেই সিএএ কার্যকর হবে বলে জানালেন তিনি। দলের শীর্ষ নেতৃত্বের থেকে, তিনি নাকি এই বার্তাই পেয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন শীর্ষ নেতৃত্বের থেকে যে খবর পেয়েছি, তার ভিত্তিতেই বলছি।

খসড়া তৈরি হয়ে গিয়েছে,মুখ্যমন্ত্রী বাধা দিয়েও কিছু করতে পারবেন না। কারণ তিনি মুসলমান ভাইদের ভুল বুঝিয়েছেন। বহু শিক্ষিত মুসলমান এখন বুঝতে পেরেছেন যে আমরা ভারতীয় নাগরিক, আফগানিস্তান, পাকিস্তান থেকে পালিয়ে আসিনি। কার্যত চ্যালেঞ্জের সুরে হরিণঘাটার বিধায়কের বলেন “মুখ্যমন্ত্রী কিছু করতে পারবেন না।” এই প্রথম নয় আগে একাধিকবার সিএএ ইস্যুতে মুখ খুলেছেন অসীম সরকার।

সূত্রের খবর সম্প্রতি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অতিম শাহের (Amit Shah) সঙ্গে দেখা করেও এই ইস্যুতে আলোচনা করেছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। প্রায় ৪৫ মিনিট দু’জনের মধ্যে আলোচনা হয়। শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি থেকে শুরু করে রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়েও কথা হয়েছে তাদের মধ্যে। জানা গিয়েছে তৃণমূলের ১০০ জন দুর্নীতিগ্রস্ত নেতার তালিকা নাকি শুভেন্দু শাহের হাতে তুলে দিয়ে এসেছেন।

আরও পড়ুন :  বাংলায় করােনার গ্রাফ ফের আকাশ ছুঁতে চলেছে, দৈনিক সংক্রমণ ছাড়াল ১২০০

আগে সিএএ ইস্যুতে তৃণমূলের ভূমিকা নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন অমিত শাহ। তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। শাহ সাফ বলেছিলেন “মমতাদিদি আপনি তো চান অনুপ্রবেশ চলতে থাকুক। কিন্তু কান খুলে শুনে রাখুন শরণার্থীদের নাগরিকত্ব আমরা দেবই। আপনি কিচ্ছু করতে পারবেন না। সিএ লাগু হবেই, কেউ আটকাতে পারবে না। কবে লাগু হবে সিএএ?এ বিষয়ে অমিত শাহ জানিয়েছিলেন, “সিএএ নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস গুজব রটাচ্ছে। বলছে বাস্তবে কোনও দিন সিএএ লাগু হবে না। তবে আমি বলছি করোনার ঢেউ শেষ হলেই, বাস্তবে সিএএ লাগু হবে।

বিরোধী দলনেতা নিজে দাবি করেন ২০২৩ সালের প্রথম দিক থেকেই রাজ্যে সিএএ লাগুর (CAA in Bengal) প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এমনই আশ্বাস দিয়েছেন। অর্থাৎ পঞ্চায়েত ভোটের আগেই রাজ্যে সিএএ লাগুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। আগেও সিএএ এবং এনআরসি (CAA in Bengal) কার্যকরের দাবি তুলেছিলেন হরিণঘাটার বিজেপি বিধায়ক অসীম সরকার।

তিনি বলেন সিএএ বিল যখন পাস হয়েছে, আইনে পরিণত হয়েছে, তখন লাগু হবেই। এই বিশ্বাস আমাদের আছে বলেই তো ভারতীয় জনতা পার্টির মধ্যে রয়েছি। যদি বিল লাগুই না হয়, তাহলে উদ্বাস্তুরা বিজেপি থেকে সরে যাবে এবং ২৪ সালের আগে যদি এটা লাগু না হয়, আমি একটা ভোটের জন্য মানুষের কাছে গিয়ে জোড় হাত করে বলতে পারব না যে বিজেপিকে ভোট দাও তোমরা।

বিজেপি বিধায়ক অসীম সরকারের এহেন দাবি ঘিরেই জোর রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়েছে। এহেন মন্তব্য প্রসঙ্গে তৃণমূলের দাবি, সামনেই লোকসভা নির্বাচন। আর তা এগিয়ে আসতেই ফের একবার সিএএ নিয়ে বিজেপি মিথ্যা বলতে শুরু করেছে বলে দাবি শাসকদলের।

Related Articles

Back to top button