নিউজ

দীর্ঘদিন ধরে একাধিক প্রলোভনের ফাঁদে ফেলে ৯ বছরের শিশুকে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ গ্রেফতার সিভিক ভলান্টিয়ার

sakalerbarta.jupiter-cdn.com

নিউজ ডেস্কঃ সিভিক ভলান্টিয়ারের লালসার শিকার ৯ বছরের এক শিশু।দীর্ঘদিন ধরে প্রলোভন দেখিয়ে শিশুটিকে যৌন নির্যাতন করতেন। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার চাকদহ থানা এলাকায়।ওই নাবালিকার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযুক্ত সিভিক ভলান্টিয়ারকে গ্রেফতার করেছে। ধৃত ওই সিভিক ভলেন্টিয়ার নাম সুপ্রিয় পাল, বয়স ৩০।তার বাড়ি নদিয়ার চাকদহের ঘেঁটুগাছি গ্রামের দিঘরা এলাকায়।ওই যুবক সিভিক ভলেন্টিয়ার হিসেবে চাকদহ থানাতেই কর্মরত ছিল।

৯ বছরের শিশুটি ওই গ্রামেরই বাসিন্দা। শিশুটি তাকে মামা বলে ডাকত, সুপ্রিয়র বাড়িতেও প্ৰায় যেত শিশুটি।দীর্ঘদিনের পরিচয়, তার উপরে আবার সিভিক ভলান্টিয়ার, সব মিলিয়ে সুপ্রিয়কে চোখ বন্ধ করে বিশ্বাস করেছিল শিশুটির পরিবার। তাই ভরসা করে বাড়ির ছোট্ট মেয়েটিকে সুপ্রিয়র কাছে যেতে দিতেন তারা। আর ঠিক সেই সুযোগকেই কাজে লাগায় যুবক। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে দীর্ঘদিন ধরেই শিশুটিকে লজেন্স, কখনও খেলনার প্রলোভন দেখিয়ে নিজের সঙ্গে বাড়িতে নিয়ে যেত যুবক। আর সেখানেই দিনের পর দিন ধরে চলে শিশুটির উপর যৌন নির্যাতন। কখনও আবার বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার অছিলাতেও চলে অত্যাচার। সুপ্রিয়র বাবা মা দুজনেই অসুস্থ। ফলে বাড়িতে কী ঘটছে সেই সম্পর্কে তাঁরা কিছুই জানতেন না।

আরও পড়ুন :  নতুন রয়্যাল এনফিল্ড বুলেট নিয়ে মন্দিরে পূজো দিতে গিয়ে বোমার মতো বিস্ফোরণ বাইকে! Viral Video

গত তিন মাস ধরে এসব চলতে থাকলেও পরিবারকে কিছুই জানায়নি নাবালিকা। ফলে ঘটনার কিছুই জানত না পরিবার। সম্প্রতি এক দিদির কাছে ঘটনার কথা জানায় শিশুটি। এরপরই পুরো বিষয়টা বাবা মার কানে গেলে শিশুটিকে জিগেস করেন তারা।তখন সমস্ত ঘটনার কথা বাবা মাকে জানায় নাবালিকা। সোমবার সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে চাকদা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিত শিশুটির পরিবার। মঙ্গলবার প্রায় ভোর রাতে সুপ্রিয়কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

যদিও সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করেছে অভিযুক্ত যুবক। চক্রান্ত করে তাকে মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসানো হয়েছে। তার দাবি পরিবারের এবং বাবা মায়ের ওই পরিস্থিতির কারণে একা সবকিছু সামলাতে হিমশিম খেতে হয় তাকে। বাচ্চাটিকে সে স্নেহ করত, শিশুটির ওপর কোনওরকম অত্যাচার সে করেনি। মঙ্গলবার অভিযুক্তকে কল্যাণী মহকুমা আদালতে হাজির করা হয়, তবে জামিন মেলেনি সুপ্রিয়র।শিশুটির শারীরিক পরীক্ষাও করানো হয়েছে কল্যাণীর একটি হাসপাতালে।নাবালিকারও গোপন জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে। পুলিশ ইতিমধ্যেই এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Related Articles

Back to top button