নিউজ

Bird flu-র সময় চিকেন, ডিম খাওয়ার নিরাপত্তা নিয়ে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিল WHO

নিউজ ডেস্কঃ করােনা এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি, এর মধ্যেই কেন্দ্রের চাপ বাড়িয়েছে বার্ড ফ্লু। কেরল, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, হিমাচল প্রদেশে হাঁস, মুরগি, পাখির মৃত্যুর হিড়িক লেগেছে। মৃত পাখিদের শরীরে এইচ৫এন১ ভাইরাস মিলেছে।

During bird flu, the WHO made it clear about the safety of eating chicken and eggs

এই ভাইরাসের জেরে পাখিদের শ্বাসকষ্ট, সংক্রমণ এবং তা থেকে মৃত্যু হয়। তার পরেই সতর্কতা জারি করেছে কেন্দ্র। চার রাজ্যে ১২টি বার্ড ফ্লু আক্রান্ত অঞ্চল চিহ্নিত করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেখানে খামারগুলােকে কড়া নির্দেশ দিয়েছে।

আতঙ্কে রাজ্যে বিভিন্ন জায়গায় মুরগির মাংস, ডিমের দাম কমেছে। কারণ মনে করা হচ্ছে ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আগেই যদি বিক্রি হয়ে যায় তাহলে লাভ হবে। পাশাপাশি কেউ ভয়ে কিনছেন না, সেক্ষেত্রেও ব্যবসায় সমস্যা হতে পারে।

এখন অনেকের মনেই প্রশ্ন জেগেছে বার্ড ফ্লু-র মধ্যে হাঁস-মুরগি ও তার ডিম খাওয়া কি নিরাপদ? হাঁস -মুরগি ও ডিম সবই পেলিট্রিজাত।সেক্ষেত্রে এই পাখি বা ডিম হাত দিয়ে নাড়াচাড়া করার ক্ষেত্রে একটা ঝুঁকি থেকেই যায়। কিন্তু এখনও পর্যন্ত পাখিদের থেকে ভাইরাস মানুষের শরীরে সংক্রমিত হতে পারে বলে এখনই কিছু জানাচ্ছেন না বিশেষজ্ঞরা।
এই নিয়ে স্পষ্ট বার্তা দিয়েছে WHO

* মুরগির মাংস বা ডিম ঠিকমতাে রান্না করে খেলে কোন ও সমস্যা নেই।রান্না করার সময় তাপমাত্রা হয় সাধারণত ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।মাংসের সমস্ত অংশের তাপমাত্রা যদি ৭০ ডিগ্রিতে পৌঁছয়, তাহলে ভাইরাস আর বেঁচে থাকতে পারে না।
* মাংস রান্নার আগে ভালাে করে ধুয়ে নেওয়ারও পরামর্শ দিল হু৷
* কাটা মরগি না কেনাই যথাযথ বলে জানিয়েছে WHO।
* পােলট্রিজাত পাখি হাতে নেওয়ার পর অন্তত ২০ সেকেন্ড গরম জলে হাত ধুয়েই রান্না করার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button