নিউজবিনোদন

গ্ল্যামারের জগতে ফের অন্ধকার! পল্লবী দের পর কলকাতায় আর এক মডেলের রহস্য মৃত্যু

গত ১৫ মে অভিনেত্রী পল্লবী দের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় দক্ষিণ কলকাতার গড়ফার ফ্ল্যাট থেকে। কীভাবে মৃত্যু হল পল্লবীর তা নিয়ে বিস্তর আলোচনা চলছে।টলি অভিনেত্রী পল্লবীর মৃত্যু নিয়ে জট কাটতে না কাটতেই আরও এক উঠতি অভিনেত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার। বুধবার নাগের বাজার এলাকার একটি আবাসন থেকে উদ্ধার হয়েছে ২১ বছর বয়সি বিদিশা দে মজুমদার নামে এক অভিনেত্রী তথা মডেলের ঝুলন্ত দেহ।বিদিশা দে মজুমদার নামে ওই তরুণী মূলত মডেল হিসেবেই পরিচিত ছিলেন এলাকায়। বেশ কিছু মডেলিং-এর কাজও করেছেন তিনি। তাঁর ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রাম জুড়ে রয়েছে সে সব ছবি।

মডেল বিদিশা আত্মহত্যা করেছেন না কি তাঁর মৃত্যুর পিছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে, তা তদন্ত করে দেখছে নাগেরবাজার থানার পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস দেওয়া অবস্থায় উদ্ধার হয়েছে বিদিশার দেহ। ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ ছিল। বিদিশার দেহের পাশ থেকে মিলেছে একটি সুইসাইড নোটও।তবে ব্যক্তিগত জীবনে কোনও সমস্যা ছিল কিনা, তা এখনও স্পষ্ট নয় পুলিশের কাছে। বুধবার বিকেলে বেশ কিছুক্ষণ ডাকাডাকির পর বিদিশার সাড়া না পাওয়ায় স্থানীয় বাসিন্দারাই এদিন পুলিশকে খবর দেন।এরপর পুলিশ এসে দরজা ভেঙে বিদিশাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়।

আরও পড়ুন :  হাসপাতালের মর্গে উঠে বসলেন ‘মৃত’ ব্যক্তি!

ইতিমধ্যেই বিদিশার দেহ ময়নাতদন্তের জন্য আর জি কর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে মৃত্যুর কারণ অনেকটা স্পষ্ট হবে বলে মনে করা হচ্ছে।উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটির বাসিন্দা বিদিশা মাস দেড়েক ধরে ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে ছিলেন নাগেরবাজারের রামগড় কলোনিতে। ৪-৫ বছর ধরে মডেলিং-এর কাজ করছেন তিনি। তাঁর প্রেমিকের নাম অনুভব বেরা। মাস কয়েক আগে ওই আবাসনে অনুভবের সঙ্গে তিনি থাকতে শুরু করেন বলে জানা গিয়েছে। স্থানীয়রা জানাচ্ছেন অনুভবের সঙ্গে বিদিশার বচসা লেগে থাকত প্রায়ই।পেশায় জিম ট্রেনার অনুভব মেদিনীপুরের বাসিন্দা। তাঁর সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন :  কেন্দ্র ও রাজ‍্যের সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে ডিসেম্বর মাসে খুলে দেওয়া হবে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

বিদিশার ঘনিষ্ঠ বান্ধবীদের দাবি সম্পর্কের টানাপড়েন থেকে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে বিদিশা। তাঁর এক বান্ধবী বলেন, প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে অবসাদে ভুগছিল বিদিশা।সম্পর্ক ভাঙার কথা, আত্মহত্যার কথা আমাকে বলেছিল। বিদিশা বলেছিল, ওকে ছাড়া বাঁচব না। নিজেকে শেষ করে দেব। দাবি করা হচ্ছে এর আগেও দুবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন মডেল বিদিশা দে মজুমদার। কিন্তু বান্ধবী এবং সহকর্মীদের বাঁধার মুখে পড়ে তিনি আর সেই কাজ করতে পারেননি। জানা যাচ্ছে মাস কয়েক ধরেই প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে চরম অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। এমনকি বুধবার ভোর রাত পর্যন্তও বিদিশাকে বোঝানোর চেষ্টা করে তার এক বান্ধবী কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি।

পল্লবীর মৃত্যুর পরেই ফেসবুকে তাঁর ছবি শেয়ার করে পোস্ট করেছিলেন বিদিশা। তাতে তিনি লিখেছিলেন, ‘মেনে নিতে পারলাম না’।এখনও ফেসবুকে জ্বলজ্বল করছে তাঁর সেই পোস্ট। কিন্তু এবার পল্লবীর মতোই নিজেও চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

Related Articles

Back to top button