Home স্বাস্থ্য ও শরীরচর্চা শীতে শিশুর যত্ন নিতে ৭টি পরামর্শ, যা আপনার কাজে লাগতে পারে

শীতে শিশুর যত্ন নিতে ৭টি পরামর্শ, যা আপনার কাজে লাগতে পারে

◼️শীতে শিশুর যত্ন নিতে ৭টি পরামর্শঃ

শীতে শরীরের বেশিরভাগ শক্তিই চলে যায় শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে। আর তাই শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমে যায়।সেজন্য শীতে শিশুর দরকার বাড়তি যত্ন।

১)রুমের তাপমাত্রাঃ স্বাভাবিক তাপমাত্রা এর কাছাকাছি রাখার চেষ্টা করতে হবে, কিন্তু খেয়াল রাখবেন, রুমে যাতে আলো বাতাস চলাচল করে।
প্রয়োজনে রুম হিটার(রুম গরম রাখার জন্য)/ humidifier (রুমের আর্দ্রতা ধরে রাখার জন্য) ব্যবহার করতে পারেন।

আরও পড়ুন :  আপনি কি দীর্ঘ সময় ধরে যারা মাস্ক পড়ছেন, তাদের জন্য রইলো কিছু পরামর্শ

২)রুমে ধুলাবালি যাতে না জমে।তার জন্য সবসময় ঘরদোর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন।

৩)এমন জামা পড়াবেন যাতে শিশুর শরীর গরম থাকে, আবার শিশু ঘেমে যাচ্ছে কিনা সেটাও খেয়াল রাখবেন।
শীতের পোশাকে অনেক সময় উল বা পশম থাকে, এ থেকেও শিশু হাঁচি কাশি হতে পারে,তাই কাপড় নির্বাচন এর ক্ষেত্রে সর্তক থাকবেন।

৪)বাচ্চার কম্বল বা ব্ল্যাংকেটঃ যাতে হাল্কা, নরম, কম্ফোর্টেবল হয়, বাচ্চার নাড়াচাড়া বা শ্বাস নিতে যাতে কষ্ট না হয়।

আরও পড়ুন :  আশ্চর্য করা গরম জলের উপকারীতা!জেনে নিন বিস্তারিত।
আরও পড়ুন :  করোনা ভাইরাসের মোকাবেলায় নুন জল দিয়ে অভিনব সাফল্য!

৫)ত্বকের যত্নঃঅবশ্যই শিশুর ত্বকের মোয়েশ্চারাইজার এর দিকে খেয়াল করতে হবে,স্নানের সময় বেশি সাবান বা বডি ওয়াশ ব্যবহার করা যাবে না, সপ্তাহে ১-২ দিন, ব্যবহার করলেও মাইল্ড সোপ বা বডি ওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন।

স্নানের আগে তেল দিয়ে ম্যাসাজ অত্যন্ত উপকারী শিশুর জন্য, এবং স্নানের পর অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন।

আরও পড়ুন :  ওষুধ ছাড়াই রক্তচাপ নিয়ন্ত্রন! কিন্তু কিভাবে?জেনে নিন বিস্তারিত।

৬) শিশুর খাবারের দিকে লক্ষ্য রাখুন।৬ মাস (১৮০ দিন) পর্যন্ত শুধুমাত্র বুকের দুধ, তারপর থেকে বাড়তি খাবার শুরু করতে হবে,আরেকটু বড় শিশুর ক্ষেত্রে খাবারের সাথে লেবু দিবেন।এছাড়া শিশুকে কমলা, মালটা,পেয়ারা ইত্যাদি দিতে পারেন।

৭) শিশুর ঠান্ডা,কাশি, হাঁচি, জ্বর ইত্যাদি যে কোন সমস্যাতে দেরী না করে ডাক্তার এর পরামর্শ নিবেন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন

এই মুহূর্তে

- Advertisment -
- Advertisment -

ভাইরাল