লাইফস্টাইল

যদি হার্ট ভাল রাখতে চান, তাহলে মাড়ি তথা দাঁত পরিষ্কার রাখা জরুরি, বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ,

যদি হার্ট ভাল রাখতে চান, তাহলে মাড়ি তথা দাঁত পরিষ্কার রাখা জরুরি

নিউজ ডেস্কঃ ঝকঝকে দাঁতে সুন্দর হাসি কেবল আপনার ব্যক্তিত্বকেই আকর্ষণীয় করে না, এটা আপনার সুস্বাস্থ্যেরও পরিচায়ক। রোজ ব্রাশ করলে দাঁত ভালো থাকে, মাড়ির দোষ এড়ানো যায় ইত্যাদি কথা আমরা প্রত্যেকেই জানি।তবে জানেন কি শুধু মুখের স্বাস্থ্য নয়, রোজ ব্রাশ করলে নানা প্রাণঘাতী রোগ থেকেও মুক্ত হওয়া সম্ভব? গবেষণা বলছে, যদি হার্ট ভাল রাখতে চান, তাহলে মাড়ি তথা দাঁত পরিষ্কার রাখা জরুরি। যার জন্য রোজ ব্রাশ করা খুবই প্রয়োজনীয়।

ইউরোপিয়ান জার্নাল অফ প্রিভেন্টিভ কার্ডিওলজির এক গবেষণা বলছে, রোজ দাঁত মাজলে কমে আর্টিয়াল ফিব্রিলেশনের ঝুঁকি, ফলে হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কাও কমে।এই গবেষণা অনুযায়ী আমাদের মুখ হল বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া সহ অন্যান্য জীবাণুর শরীরে ঢোকার অন্যতম রাস্তা। এই জীবাণু বিভিন্ন প্রাণঘাতী অসুখ তৈরি করতে পারে।মাড়িতে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়া রক্ত বাহিকার মধ্যে ঢুকলেই তা রক্তকে জমাট বাঁধিয়ে দেয়। ফলে রক্তচলাচলে সমস্যা হয়। জার্নালের তথ্য বলছে সারা বিশ্বে অধিক মৃত্যুর কারণ এই ‘হার্ট অ্যাটাক’।বিশ্বের একটা বড় অংশের হৃদরোগী দাঁত বা মাড়ির সমস্যায় ভোগেন।

আরও পড়ুন :  প্রয়াত অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের অকাল মৃত্যুর পিছনে রয়েছে হৃদরোগ, হৃদরোগ নিয়ে কতটা সতর্ক থাকা প্রয়োজন কী বলছেন চিকিৎসকরা

এই বিষয়ে চিকিৎসক তিলক সুবর্ণা বলছেন গবেষণাটি পেরিওডন্টাল রোগ এবং কার্ডিওভাসকুলার রোগের মধ্যে একটি ইতিবাচক সম্পর্ক দেখিয়েছে।যেখানে বলা হচ্ছে এই সমস্যা থেকে সাড়ে তিনগুণ হার্টের রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়।যদিও কোন মেকানিজম দিয়ে দুটি ফ্যাক্টরকে যোগ করা হচ্ছে, তা এখনও স্পষ্ট নয়।তবে চিকিৎসকরা পরামর্শ দিচ্ছে ফুসফুসের সমস্যা সহ হার্টের রোগ থেকে সুরক্ষা পাওয়ার জন্য মুখ ও দাঁত পরিষ্কার রাখা জরুরি। আসুন দেখে নেওয়া যাক তাঁদের পরামর্শগুলিঃ-

১) দিনে অন্তত দুবার ব্রাশ করুন অবশ্যই সকালে এবং রাতে শুতে যাওয়ার আগে। নরম ব্রাশ ব্যবহার করুন।

২) প্রতি তিন থেকে চার মাস অন্তর নিজের টুথব্রাশ বদল করুন।ভালো টুথপেস্ট ব্যবহার করতে হবে।

৩) শুধু দাঁত নয়, জিভ ও মাড়ি পরিষ্কার করুন।

৪) ব্রাশ করার পর মাউথওয়াশ ব্যবহার করবেন।

৫)চিনি কম খাবেন। কারণ চিনি দাঁত ও মুখের স্বাস্থ্য খারাপ করতে পারে।

৬)) তামাকজাতীয় খাবার না চিবানোই ভাল। এছাড়াও ধূমপান থেকে দুরে থাকা ভাল।

৭)ডেন্টাল চেকআপ করাবেন।প্রয়োজনে করাতে হবে ক্লিনিং।

Related Articles

Back to top button