Uncategorized

কিডনির পাথর সারবে তুলসি পাতায়, তুলসি পাতায় রয়েছে নানা ঔষধি গুণাগুণ

কিডনির পাথর সারবে তুলসি পাতায়, তুলসি পাতায় রয়েছে নানা ঔষধি গুণাগুণ

একাধিক ঔষধি গুণ এবং রোগ নিরাময়ের ক্ষমতা রয়েছে তুলসি পাতায়।ছোটোখাটো অনেক রোগের ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা হয় এই তুলসি পাতা।সবুজ রঙের গুল্মজাতীয় একটি উপকারী উদ্ভিদ হল তুলসী।আসুন তাহলে জেনে নিন তুলসি পাতার ঔষধি গুণাগুণ-

১) গলা ব্যথাঃ-
সামান্য গরম জলেতে তুলসি পাতা দিয়ে সেদ্ধ করে নিয়ে, সেই জল দিয়ে কুলকুচি করলে বা জল খেতে পারলে গলার ব্যাথা দ্রুত সেরে যাবে।

২) সর্দি ও কাশিঃ-
সর্দি কাশি থেকে রক্ষা পেতে তুলসী পাতা ও আদার রসের সঙ্গে একটু মধু মিশিয়ে খেতে পারেন। তাহলে এই সমস্যার হাত থেকে সহজেই সমাধান পেয়ে যাবেন।

৩) ত্বকের সমস্যাঃ-
ত্বকে ব্রণের সমস্যা সমাধানের একটি সহজলভ্য ও অন্যতম উপাদান হল তুলসি পাতা তুলসি পাতার পেস্ট তৈরি করে তা ত্বকে লাগালে এই সমস্যাগুলি অনেকটাই কমে যায়।

৪) জ্বরঃ-
চায়ে তুলসিপাতা সেদ্ধ করে সেই পাণীয় যদি পান করেন, তবে ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গু প্রভৃতি অসুখ থেকে রক্ষা পেতে পারেন।তুলসিপাতা এবং দারুচিনি মেশানো ঠান্ডা চা পান করলে জ্বর সেরে যাবে দ্রুত।

৫)মুখের রুচিঃ-
সকালবেলা খালি পেটে তুলসী পাতা চিবিয়ে খেলে মুখের রুচি বাড়বে।

৬)মানসিক অবসাদ দূর করেঃ-
তুলসী চা শারীরিক ও মানসিক অবসাদ দূর করে এবং মস্তিষ্কে অক্সিজেনের সরবরাহ বাড়ায়।

৭)চোখের সমস্যা দূর করতেঃ-
চোখের সমস্যা দূর করতে রাতে কয়েকটি তুলসী পাতা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। ওই পানি দিয়ে সকালবেলা চোখ ধুয়ে ফেলুন।

৮)কিডনির সমস্যাঃ- তুলসিপাতা কিডনির বেশ কিছু সমস্যার সমাধান করে দিতে পারে। তুলসিপাতার রস প্রতিদিন একগ্লাস করে খেতে পারলে, কিডনিতে স্টোন হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়৷ যদি কিডনিতে পাথর জমে যায়, সে ক্ষেত্রে তুলসিপাতার রস টানা ৬ মাস খেতে পারলে সেই স্টোন মূত্রের সঙ্গে বেরিয়ে যায়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button