Home নিউজ সারাদিন দাঁড়িয়ে গোদাবরীকে দুশন্মুক্ত রাখতে, বাঁশি বাজিয়ে আটকাচ্ছেন নাসিকের চন্দ্রকিশোর পাতিল

সারাদিন দাঁড়িয়ে গোদাবরীকে দুশন্মুক্ত রাখতে, বাঁশি বাজিয়ে আটকাচ্ছেন নাসিকের চন্দ্রকিশোর পাতিল

নিউজ ডেস্কঃ বর্তমানে পৃথিবীর একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা হলো দূষণ।যা থেকে কোনভাবেই রেহাই মিলছেনা।মানুষকে হাজার বার সচেতন করলেও তারা সেই কথায় ততটা আমল দিতে রাজি নয়।তবে পরিবেশপ্রেমীরা কিন্তু চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন দূষণ রোধ করার।আর সেজন্য পরিবেশপ্রেমীদের নানারকম কর্মসূচি মাঝে মধ্যেই চোখে পড়ে।যার জলজ‍্যান্ত প্রমাণ ইন্দিরা নগরের চন্দ্রকিশোর পদেস্ক

দূষন বেড়ে যাওয়ায় অন‍্যতম কারণ প্লাস্টিক।প্লাস্টিক পচনশীল নয়।যত্রতত্র প্লাস্টিক ফেলে দেওয়ার ফলে দূষণ বাড়ছে চড়চড় করে।এই প্লাস্টিক দূষনের কারণে নদী তার নাব‍্যতা হারাচ্ছে ফলে বন‍্যা হচ্ছে।এছাড়াও বাড়ছে অন‍্যান‍্য প্রাকৃতিক দূর্যোগ। তবে নদীকে বাঁ‍চানোর তাগিদেই বোধ হয় তার এমন চিন্তা ভাবনা।বিশেষ করে উৎসবের দিনগুলোতে তাই গোদাবরী নদীর পারে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায় নাসিকের চন্দ্রকিশোর পাতিলকে।

আরও পড়ুন :  হাসপাতালের মর্গে উঠে বসলেন ‘মৃত’ ব্যক্তি!

তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন গত পাঁচ বছর ধরে টানা একাজ করে চলেছেন তিনি।তিনি মনে করেন উৎসবের দিনগুলোতে নদীগুলিতে দূষণের মাত্রা বেড়ে যায়।তাই তার এই সিদ্ধান্ত।বেলা ১১টা থেকে ঠায় দাড়িয়ে থাকেন তিনি।কেউ নোংরা ফেলতে এলেই সিটি বাজিয়ে সতর্ক করেন যাতে নদীতে নোংরা না ফেলে।তবে এর জন্য তাকে মাঝে মাঝেই কথাও শুনতে হয় পাবলিকের।সবকিছু হজম করে মনেপ্রাণে নিজের কাজ করছেন তিনি।

আরও পড়ুন :  কলেজে নিয়োগ-প্রক্রিয়া ঘিরে এ দিন বিক্ষোভ হয় সল্টলেকে

কয়েকদিন আগে এক আইএফএস অফিসারের চোখে পড়েন তিনি।আর সেই অফিসারই চন্দ্রকিশোরের ছবি স‍্যোশাল মিডিয়ায় আপলোড করে বলেন,”আমি নাসিকে একটি লোককে দেখলাম।যিনি গোদাবরী নদীর পাশে ঠায় দাড়িয়ে আছেন এবং বাশি বাজিয়ে দশেরার বর্জ‍্য নদীতে ফেলা থেকে বিরত করছেন মানুষকে।প্রিয় পাতিল, আপনাকে শ্রদ্ধা জানাই।”পোস্টটি করা হয়েছে ৩১ অক্টোবর তবে স‍্যোশাল মিডিয়ায় আসার সাথে সাথেই পাতিল স‍্যারের এই কাজ রীতিমতো প্রশংসার ঝড় উঠেছে ও মূহুর্তে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন

এই মুহূর্তে

- Advertisment -
- Advertisment -

ভাইরাল