Home দেশ ১ এপ্রিল থেকে পবিত্র কুম্ভমেলা হরিদ্বারে, পুণ্যার্থীদের রেজিস্ট্রেশনের জন্য করােনা রিপাের্ট বাধ্যতামূলক

১ এপ্রিল থেকে পবিত্র কুম্ভমেলা হরিদ্বারে, পুণ্যার্থীদের রেজিস্ট্রেশনের জন্য করােনা রিপাের্ট বাধ্যতামূলক

১ এপ্রিল থেকে পবিত্র কুম্ভমেলা হরিদ্বারে, পুণ্যার্থীদের রেজিস্ট্রেশনের জন্য করােনা রিপাের্ট বাধ্যতামূলক

২০১০ সালের পরে ২০২১ সালের ১ এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে হরিদ্বারের পবিত্র কুম্ভমেলা।ভারতবাসীর প্রাণের জিনিস এই কুম্ভমেলা,সেই মেলা এবছর শুরু হতে চলেছে আগামী এপ্রিলের ১ তারিখে। ১২ বছর অন্তর এই মেলা হয়।এই মেলা আয়ােজিত হয় মূলত চার জায়গায়– হরিদ্বার, উজ্জয়িনী, নাসিক এবং প্রয়াগে।আর এ বছর কুম্ভ মেলা হচ্ছে হরিদ্বারে।করােনার প্রকোপ অব্যাহত থাকায় এ বছরে মেলা হবে মাত্র ২৮ দিন। হরিদ্বার-সহ ত্র্যম্বকেশ্বরে, উজ্জয়িনী এবং প্রয়াগেও পুণ্যার্থীরা পুণ্য স্নান করতে পারবেন।

আরও পড়ুন :  নিলামে উঠেছে করােনা, এমিনি হৈ চৈ জলপাইগুড়ির বাবুপারায়

উত্তরাখণ্ড প্রশাসনের তরফে ইতিমধ্যেই কুম্ভ মেলার আয়ােজন নিয়ে নানা জরুরি পদক্ষেপ করা হচ্ছে। এর মধ্যে অন্যতম হল রেজিস্ট্রেশনের ব্যবস্থা।করোনা ভাইরাসের কথা মাথায় রেখে কুম্ভমেলায় এবার রেজিস্ট্রেশনের জন্য করােনা রিপাের্ট থাকা বাধ্যতামূলক। তবে সেই রিপাের্ট পাের্টালে নথিভুক্ত করতে হবে মেলায় ঢােকার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে। শীঘ্রই এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। ১ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিলের মধ্যে ৩টি শাহি স্নানের দিন রয়েছে। প্রথম শাহি স্নান হবে ১২ এপ্রিল, সেদিন সােমবতী অমাবস্যা। দ্বিতীয়টি ১৪ এপ্রিল পয়লা বৈশাখ এবং তৃতীয়টি ২৭ এপ্রিল সেদিন পূর্ণিমা।

আরও পড়ুন :  ভূমিপুজোর ১৩৮ দিন পেরোলেও রামমন্দিরের কাজে দেরি হচ্ছে কেন, কি পাওয়া গেছে মাটির নিচে?
আরও পড়ুন :  নাড্ডার কনভয়ে ‘হামলা’ কনভয়ে করা হয় ইটবৃষ্টি, দেখুন ভিডিও

 

কয়েক কোটি মানুষ পুণ্য অর্জনের জন্য মেলায় অংশ নেন এবং স্নান সারেন। ১২ বছর অন্তর হওয়া এই মেলা চলে চার মাস ধরে।তবে এবার করােনা অতিমারীর জেরে এই প্রথমবার মাত্র ২৮ দিনের মধ্যেই শেষ হবে ২০২১ কুম্ভ মেলা।উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিভেন্দ্র সিং রাওয়াত জানিয়েছেন মেলা আয়ােজনের ক্ষেত্রে কেন্দ্র যে গাইডলাইন দিয়েছে, তা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে মানা হবে।করােনা বিধি মেনেই উত্তরাখণ্ড প্রশাসন স্নানের ব্যবস্থা করবে। তবে মুখ্য স্নানের দিন কীভাবে এত মানুষকে সামাল দেওয়া হবে, তা নিয়ে যথেষ্ট চিন্তায় প্রশাসন। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সকে কাজে লাগানাে হবে।পাশাপাশি যাঁরা প্রথম সারিতে থাকবেন ভিড় সামাল দেওয়া এবং অন্যান্য কাজের জন্য, তাঁদের করােনা টিকা দেওয়া হবে আগেই।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন

এই মুহূর্তে

- Advertisment -
- Advertisment -

ভাইরাল