নিউজ

মারিউপোল কার্যত এখন ধ্বংসস্তূপ! রাস্তার পাশেই দেওয়া হচ্ছে গণকবর

মারিউপোল কার্যত এখন ধ্বংসস্তূপ! রাস্তার পাশেই দেওয়া হচ্ছে গণকবর

নিউজ ডেস্কঃ গত কয়েকদিনের সংঘর্ষে কার্যত ধ্বংসস্তূপে পরিণত হওয়া মারিউপোল এখন পতনের মুখে বলে মনে করা হচ্ছে।ইউক্রেন যুদ্ধের ২৬তম দিনেও অব্যাহত রুশ হামলা। রাশিয়ার সামরিক অভিযানের মুখে শহরটি ছেড়ে পালিয়েছেন হাজারো মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন অনেকে। মারিউপোল এখন যেন এক দুর্ভোগের প্রতীক।শহরের পর শহর যেন শ্মশান, প্রতি মুহূর্তে মৃত্যুভয়। এক শহর থেকে অন্য শহরে পালানো মানুষ জানে না, তাঁর বাড়ির লোক বেঁচে আছে কিনা। আবার কেউ ভাবছেন তাঁর নিজের বাড়ি এখনও আছে কিনা।

রাস্তার পাশেই অবিরত চলছে কবর খোঁড়া। বোমা বিধ্বস্ত অ্যাপার্টমেন্টের উল্টোদিকে দেখা গেল একটি ছেলে কবর খুঁড়ছে। আর তাতে একের পর এক দেহকে সমাধিস্থ করছে সে। সবাই তার প্রতিবেশী সবাই আজ মৃত।কবর দেওয়ার সময় যুবক জানালেন সবাই কিন্তু রুশ আক্রমণে মারা যাননি। অনেকেই মারা গেছেন খাবার না পেয়ে, ওষুধ না পেয়ে। কেউ আবার ঠান্ডায় কাঁপতে কাঁপতে। দিনের পর দিন পরিবারগুলি খাবার পায়নি, তারপর আর কদিন তাঁরা বাঁচবে। মারিউপোল আত্মসমর্পণ করার হুঁশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া।ইউক্রেনের পাল্টা জবাব আত্মসমর্পণের প্রশ্নই নেই।

আরও পড়ুন :  আগামী ২ ডিসেম্বর ডুয়েল সেলফি ক্যামেরা সহ ভারত আসছে Infinix Zero 8, সস্তায় পাবেন অনেক কিছু

রাজধানী কিভে রাতভর রুশ ক্ষেপণাস্ত্রের হানা।বোমাবর্ষণে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ৬ জনের।মারিউপোলেও লাগাতার গোলাবর্ষণ চলছে। প্রাণ বাঁচাতে ধ্বংসস্তূপের মধ্যেই আশ্রয় নিচ্ছেন বহু মানুষ। ইউক্রেনের দাবি বন্দর শহর সেভাস্তোপোলে পাল্টা হামলায় মৃত্যু হয়েছে কৃষ্ণসাগরে রুশ নৌবহরের এক সিনিয়র কম্যান্ডারের।লুহানস্কের ক্রেমিন্না শহরের একটি নার্সিংহোমে রুশ ট্যাঙ্কের হামলায় মৃত্যু হয়েছে ৫৬ জন বয়স্ক আবাসিকের।

এই যুদ্ধের ভয়াবহতার মাঝেই সুমি শহরে একটি কেমিক্যাল প্লান্টে অ্যামোনিয়া গ্যাস লিক হওয়াকে কেন্দ্র করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। প্রায় পাঁচ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বাসিন্দাদের নিরাপদ জায়গায় সরানোর কাজ চলছে। এই সংঘর্ষে মারিউপোেল শহরের ৯০ শতাংশ বাড়িঘর ধ্বংস হয়ে গেছে। ধ্বংসস্তূপের ভেতর থেকে হতাহতদের বের করে আনছেন উদ্ধারকর্মীরা।

Related Articles

Back to top button