নিউজ

স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের মাঝে অশান্তির কারণ মোবাইল ফোন, তাই স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন করল তাঁর স্বামী

migrant worker in kerala killed wife after arguing over using mobile phone

নিউজ ডেস্কঃ বর্তমানে মোবাইল ফোন ছাড়া থাকা প্রায় অনেকের কাছে অসম্ভব ব্যাপার। তবে এই ফোনই যদি আপানাদের দাম্পত্য কলহের কারণ হয়ে যায় তা হলে তা খুবই দুঃখজনক।স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের মাঝে মোবাইল ফোন অশান্তির কারণ হওয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন করল তাঁর স্বামী।ভারতের দক্ষিণী রাজ্য কেরলে মোবাইল ফোনকে কেন্দ্র করে এমন ঘটনা ঘটেছে।অসম নিবাসী খালিদা গাথুন নামে বছর ৪৪ এর এক মহিলাকে কুপিয়ে খুন করেছে তাঁর স্বামী।অভিযুক্তের নাম ফারুখউদ্দিন।অভিযুক্ত ব্যক্তি একটি প্লাইউড ফ্যাক্টরিতে কাজ করে।

আরও পড়ুন :  অল্পের জন্যে অজগর সাপের কামড় থেকে রক্ষা পেয়ে প্রানে বেচে ফিরলো যুবক

অতিরিক্ত মোবাইল ব্যবহারের কারণে ফারুখ স্ত্রীকে সন্দেহ করত,আর এই নিয়ে মাঝেমধ্যেই ওই দম্পতির মধ্য অশান্তি হত। শুক্রবারও এই কারণে তাদের মধ্যে বিবাদ চরমে ওঠে। সেই সময়ই ফারুখ ধারাল অস্ত্র দিয়ে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করেছিল।মহিলার চিৎকার শুনে প্রতিবেশিরা তাদের বাড়ি গিয়ে এই ঘটনার কথা জানতে পারে।প্রতিবেশিরা ওই দম্পতির একমাত্র ছেলেকে ঘটনার কথা জানায়।ছেলে বাড়িতে ঢুকে দেখে মা রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন।পুলিশ সূত্রে খবর মোবাইল ব্যবহার নিয়ে স্ত্রীয়ের সঙ্গে তর্ক বিতর্কের পরই শুক্রবার ১ এপ্রিল ফারুখ রাত ১১ টা নাগাদ এই কাণ্ড ঘটায় সে।

আরও পড়ুন :  আজ কেন কিছুটা সময়ের জন্য বন্ধ ছিল এই অ্যাপটি, জানুন বিস্তারিত

এই মারাত্মক ঘটনা ঘটিয়ে ফারুক গা ঢাকা দিয়েছে, পুলিশ তাঁর খোজ চালাচ্ছে।প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের মনে হয়েছে ফারুখই নিজের স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়ে গিয়েছে।পেরুমবাড়ুর থানা পুলিশ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু করেছে।পুলিশ আধিকারিকরা মনে করছেন তাকে গ্রেফতার করলে এই ঘটনা সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানা যাবে।

Related Articles

Back to top button