Advertisement
নিউজ

New airport in West Bengal: পর্যটন প্রেমীদের জন্য সুখবর!এবার রাজ্যে গড়ে উঠবে আরও একটি বিমানবন্দর

বাংলায় আরও এক বিমানবন্দর!আলিপুরদুয়ার জেলার হাসিমারায় তৈরী হবে নতুন একটি বিমানবন্দর।এ বিষয়ে অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের তরফে সবুজ সঙ্কেত পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লা।

New airport in West Bengal: বাংলায় আরও এক বিমানবন্দর!আলিপুরদুয়ার জেলার হাসিমারায় তৈরী হবে নতুন একটি বিমানবন্দর।এ বিষয়ে অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের তরফে সবুজ সঙ্কেত পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লা। জানা গিয়েছে, হাসিমারায় যে সামরিক বাহিনীর বিমানঘাঁটি রয়েছে, সেটাকেই বিমানবন্দর গড়ার কাজে ব্যবহার করা হবে (New airport in West Bengal)। এজন্য রাজ্য সরকারের কাছে জমিও চেয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রক।

Advertisement

বার্লা জানান এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট দফতরের মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য শিল্ডের অসামরিক বিমান পরিবহণ দফতর থেকে তাঁর কাছে একটি চিঠি এসেছে।বহু চেষ্টার পরও বিমান চলাচল শুরু করা যায়নি কোচবিহার বিমানঘাঁটি থেকে। এবার পার্শ্ববর্তী জেলা আলিপুরদুয়ারের হাসিমারাতে যাত্রীবাহী বিমান পরিষেবা শুরুর পরিকল্পনা নিয়েছে অসামরিক বিমান পরিবহণমন্ত্রক (New airport in West Bengal)।

Advertisement

কেন্দ্রের তরফে হাসিমারাতে বিমানঘাঁটি গড়ে তোলার জন্য রাজ্যের কাছে জমিও চাওয়া হয়েছে। তবে যতদিন বিমান ওঠানামার জন্য প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো গড়ে তোলা না হচ্ছে ততদিন যাত্রীবাহী বিমান ওঠানামার জন্য হাসিমারার সামরিক বিমানঘাঁটি ব্যবহার করার একটা পরিকল্পনা রয়েছে অসামরিক বিমান পরিবহণমন্ত্রকের। হাসিমারার বিমানঘাঁটি বর্তমানে ভারতীয় বায়ুসেনার অধীনে রয়েছে।

আরও পড়ুন :  ২০০টি বছরে যা হয়নি এবার প্রথম তা হলো,পদত‍্যাগ করলেন জাপানি সম্রাট
Advertisement

এখানকার রানওয়ে লম্বায় ২,৭৪০ মিটার এবং চওড়ায় ৪৫ মিটার। এমন পরিকাঠামো কোড-সি এয়ারক্রাফটের জন্য যথাযথ। সূত্রের খবর, এই পরিকাঠামো গড়ে তোলার জন্য কেন্দ্র রাজ্যের কাছে ৩৭.৭৪ একর জমি চেয়েছে। ওই জায়গায় সিভিল এনক্লেভ তৈরি হবে। এবং এ-৩২০ এয়ারক্রাফট ওঠানামা করতে পারবে।এ ধরণের পরিকাঠামো কোড-সি এয়ারক্রাফটের জন্য যথাযথ।

Advertisement

বিজেপি সাংসদ বালা জানান এখন রাজ্য সরকার জমি দিলেই এই বিমানবন্দর তৈরির কাজ এগোবে।যাবতীয় পরিকাঠামো গড়ে দেবে কেন্দ্র। রাজ্যকে জমি ছাড়া আর কিছু দিতে হবে না।আগামী ৬-৭ মাসের মধ্যে বিমানবন্দর চালু হয়ে যাবে। এখান থেকে কোচবিহার ও বাগডোগরা বিমানবন্দরের দূরত্ব যথাক্রমে ৫৭ ও ১৩৭ কিলোমিটার।অসমের কোকরাঝাড় জেলার রূপসা এয়ারপোের্ট ১১৭ কিলোমিটার দূরে।স্বভাবতই আন্তঃরাজ্য পরিবহণে হাসিমারার নতুন এই বিমানবন্দর অনুঘটকের ভূমিকা নিতে চলেছে (New airport in West Bengal)।

স্বাভাবিক ভাবেই এই খবরে উচ্ছ্বসিত জেলার পর্যটন ব্যবসায়ী থেকে সাধারণ মানুষ। পর্যটন ব্যবসায়ীদের কাছে এটি অত্যন্ত খুশির খবর।ডুয়ার্সে পর্যটন আরও বাড়বে বলে আশাবাদী অনেকেই।এতে জেলার আর্থসামাজিক পরিকাঠামোর উন্নতি হবে। উত্তরবঙ্গের মানুষ বর্তমানে মূলত বাগডোগরা বিমানবন্দরের ওপর নির্ভরশীল।দূরযাত্রার জন্য আর বাগডোগরা কিংবা অসমের রূপসী বিমানবন্দরে যেতে হবে না (New airport in West Bengal)।

এই বিষয় নিয়ে আলিপুরদুয়ার ডিস্ট্রিক্ট টুরিজম আ্যসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি বিশ্বজিৎ সাহা বলেন,’আমরা রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করব যতটা জমি প্রয়োজন, সেটা যেন দেওয়া হয়। জমি-জট যেন না থাকে। বিমানবন্দর হলে ডুয়ার্সের আর্থিক এবং সামাজিক উন্নয়ন হবে’।হাসিমারায় বিমানবন্দর হলে উপকৃত হবে ভুটান, অসম, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার-সহ বিস্তীর্ণ অঞ্চলের মানুষ(New airport in West Bengal)।

Related Articles

Back to top button