নিউজ

চাকরি থেকে বরখাস্ত পরেশ-কন্যা অঙ্কিতা, ফেরত দিতে হবে বেতনও! অঙ্কিতার জায়গায় ববিতাকে অগ্রাধিকারের নির্দেশ বিচারপতির

শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর মেয়ে অঙ্কিতার SSC-তে নিয়োগ নিয়ে মামলা দায়ের করেছিলেন শিলিগুড়ির ববিতা সরকার।অঙ্কিতার বিরুদ্ধে বাবার প্রভাব খাটিয়ে অবৈধ ভাবে শিক্ষকতার চাকরি নেওয়ার অভিযোগ ছিল।সেই মামলাতেই এবার চাকরি গেল মন্ত্রীকন্যার। অঙ্কিতাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করার নির্দেশ দিয়ে আদালত জানিয়েছে, নিজেকে শিক্ষক হিসাবেও পরিচয় দিতে পারবেন না অঙ্কিতা।

 

একইসঙ্গে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় মন্ত্রী পরেশ অধিকারীর মেয়েকে আর কোনও বেতন না দেওয়ার পাশাপাশি, ‘শিক্ষিকা’ হিসেবে পাওয়া বেতন ফেরতেরও নির্দেশ দিয়েছেন।২০২০ সাল থেকে মোট ৪১ সপ্তাহের যাবতীয় বেতন ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। হাইকোর্টের (Kolkata High Court) রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে জমা দিতে হবে এই বেতন। দুই কিস্তিতে ফেরাতে হবে বেতন। প্রথম কিস্তির টাকা মেটাতে হবে ৭ জুনের মধ্যে। দ্বিতীয় কিস্তির টাকা মেটাতে হবে ৭ জুলাইয়ের মধ্যে।

আরও পড়ুন :  পথহারা যুবকে ঘরে ফিরালেন হ্যাম রেডিয়ো

পাশাপাশি বিচাপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় মন্ত্রীকন্যাকে স্কুলে ঢুকতেও বারণ করে দেন। বিচাপতি বলেন আপাতত ফাঁকা থাকবে তাঁর পোস্ট। ওই ফাঁকা পোস্টে অগ্রাধিকার পাবেন মামলাকারী ববিতা সরকার।এসএসসি কাণ্ডে একের পর এক নজিরবিহীন রায় দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশ দুর্নীতির বিরুদ্ধে শাস্তির দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে।

মন্ত্রী পরেশ অধিকারীকে বৃহস্পতিবার প্রায় টানা ৩ ঘণ্টা জেরার পর SSC মামলায় শুক্রবার সকালে ফের তলব করা হয় মন্ত্রীর।সিবিআই সূত্রে খবর পাওয়া যায়, দেরি করে পৌঁছানোয় জিজ্ঞাসাবাদ সম্পূর্ণ করতে পারেনি সিবিআই। সেই কারণেই ফের তলব করা হয়। শুক্রবার সকাল ১০.৪০ মিনিটে নিজাম প্যালেসের সিবিআই দফতরে পৌঁছে যান।সেখানেই CBI আধিকারিকদের জেরার মুখোমুখি শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী।

কম নম্বর পেয়েও মন্ত্রীর মেয়ের চাকরিতে নিয়োগ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ শুধু নম্বর কম পাওয়াই নয়, কোন রকম পার্সোনালিটি টেস্ট ছাড়াই নিয়োগ পান মন্ত্ৰীকন্যা অঙ্কিতা।যাকে সরিয়ে মন্ত্রীকন্যা চাকরি পান,সেই মামলকারীর নম্বর ছিল তাঁর থেকে বেশি, তাও তিনি চাকরি পাননি।ববিতা সরকারের দায়ের করা মামলাতেই এখন বেকায়দায় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারী।

ববিতা সরকার ২০১৬-তে SSC পরীক্ষায় বসেন। ২০১৭-র ২৭ নভেম্বর সেই SSC-র মেধাতালিকা প্রকাশ হয়। সেই মেধাতালিকায় প্রথম ২০-তেই নাম ছিল ববিতা সরকারের। কিন্তু হঠাৎই সেই তালিকা বাতিল করে SSC নতুন মেধাতালিকা প্রকাশ করে।দ্বিতীয় মেধা তালিকায় দেখা যায় ববিতার নাম নেই। ববিতার নাম ওয়েটিং লিস্টে রয়েছে। আর নতুন মেধাতালিকার শীর্ষে রয়েছে মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতার নাম। পুরনো তালিকার কোথাও যাঁর নাম ছিল না। এরপরই আইনের রাস্তায় হাঁটেন ববিতা। অবশেষে ববিতার লড়াই সফল হল।

Related Articles

Back to top button