নিউজ

উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ি বিশ্ববাংলা কোভিড হাসপাতালে Covid রোগীর দেহ লোপাটের অভিযোগ, বহু চেষ্টায় হাসপাতালের বিরুদ্ধে Complaint নিল পুলিস

Police file complaint against Covid patient at Bishwabangla Covid Hospital in Jalpaiguri North Bengal

নিউজ দেস্কঃ গত ২৬ এপ্রিল করোনা আক্রান্ত হয়ে জলপাইগুড়ির বিশ্ববাংলা কোভিড হাসপাতালে ভর্তি হন মালবাজার সাউথ কলোনির বাসিন্দা ৭৮ বছরের সুমিত্রা দাস। মঙ্গলবার তার মৃত্যু হয় বলে হাসপাতালের তরফে পরিবারকে জানানো হয়।পরিবার কোভিড হাসপাতালে এসে দেহ দেখতে চাইলে ২৬ হাজার ৫০০ টাকা নগদ দিতে হয়। এরপর তাদের জানিয়ে দেওয়া হয় দেহ প্যাক করে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে শাহুডাঙ্গি শ্মশানে।তারপর দেহ দেখতে শ্মশানে ছোটে পরিবার।কিন্তু শ্মশানে গিয়ে জানতে পারেন এই নামে কোনও দেহ সৎকারের জন্য আসেনি।

বুধবার বিকেলে আবার কোভিড হাসপাতালে এসে খোঁজ খবর করে সদুত্তর না পেয়ে এবার পুলিশের দারস্থ হয় পরিবারের লোকজন।পুলিস এনিয়ে প্রথমে কোনও অভিযোগ নিতে চায়নি। শেষপর্যন্ত বহু কাঠখড় পোড়ানোর পর বুধবার গভীর রাতে হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিল জলপাইগুড়ির কোতয়ালি থানা।এনিয়ে জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে প্রথমে তিনি এনিয়ে কিছু বলতে চাননি।তিনি জানান লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দেখবেন।

আরও পড়ুন :  বছরের শেষে গরুপাচার ও কয়লাপাচারের সিবিআই হানা, বিনয় মিশ্রের বাড়িতে তল্লাশি

অন্যদিকে দেহ লোপাট করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, এমন অভিযোগ উড়িয়ে দিলেন করোনা বিষয়ক উত্তরবঙ্গের অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি ডাক্তার সুশান্ত রায়।তিনি বলেন পরিবার আসতে দেরি করায় দেহ প্যাকেট করা হয়ে গিয়েছিল। একবার দেহ প্যাকেট হবার পর আর খোলা হয় না। কারন তা থেকে সংক্রমণ ছড়াতে পারে। তাই তাদের দেহ দেখান সম্ভব হয়নি।হাসপাতালে টাকা দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন কাকে টাকা দিয়েছেন সেটা ওঁকে চিহ্নিত করতে হবে। নইলে সরকারি হাসপাতালের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত ভাবে দুর্নাম ছড়ানোর অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে।

এদিকে সুমিত্রা দাসের পরিবারের লোকজনের অভিযোগ, জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানা এনিয়ে অভিযোগ নিতে চায়নি। বরং তাদের পাঠিয়ে দেওয়া হয় মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের কাছে।শেষপর্যন্ত বুধবার রাত বারোটার পর হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযোগ গ্রহণ করা হয়।অন্যদিকে দেহ লোপাটের অভিযোগের ঘটনায় জলপাইগুড়ি জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু সংবাদমাধ্যমে বলেন, যদি এরকম কোনও লিখিত অভিযোগ হয় তাহলে তদন্ত নিশ্চয় হবে।

Related Articles

Back to top button