নিউজ

২০২১ সালে দাঁড়িয়েও ধর্ষিতা হওয়া যেন অপরাধ!কিশােরী ও ধর্ষককে একসঙ্গে বেঁধে ঘােরাল গ্রামবাসীরা এবং স্লোগান উঠল ভারত মাতা কি জয়

২০২১ সালে দাঁড়িয়েও ধর্ষিতা হওয়া যেন অপরাধ!কিশােরী ও ধর্ষককে একসঙ্গে বেঁধে ঘােরাল গ্রামবাসীরা এবং স্লোগান উঠল ভারত মাতা কি জয়

সত্যি লজ্জাজনক ঘটনা ২০২১ সালের মাঝামাঝি সময়ে দাঁড়িয়ে ধর্ষিতা হওয়াও যেন এখানে অপরাধ। তাই শাস্তি দিতে ধর্ষিতাকেও মারধর করে ধর্ষককের সঙ্গে দড়ি দিয়ে বেঁধে গােটা গ্রাম ঘােরাল গ্রামবাসীরা।এই জঘন্যতম ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভােপাল থেকে ৪০০ কিলােমিটার দূরে একটি আদিবাসী অধ্যুষিত আলিরাইপুর গ্রামে।এই ঘটনার একটি ভিডিও সােশ্যাল মিডির ভাইরাল হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে তাদের দড়ি দিয়ে বেধে মারধর করা হচ্ছে এবং স্লোগান দিচ্ছে ‘ভারত মাতা কী জয়’।

 

একজন ধর্ষিতা কিশরীর প্রতি গ্রামবাসীদের এ হেন নৃশংস আচরণের প্রতিবাদে ক্ষোভে ফুঁসছে দেশ। তারপরেই নড়েছড়ে বসেছে প্রশাসন।ভিডিওতে এই গােটা ঘটনার সময় বেশ কয়েকজন তাদের সঙ্গেই গ্রাম ঘুরতে দেখা যায়। পুলিশ তাদের মধ্যে থেকে ছ’জনকে চিহ্নিত করে। সেই ৬ জন এবং ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে।এমনকি ধৃতদের মধ্যে কিশােরীর পরিবারের এক সদস্য রয়েছে, সে নিজে পরিবারের মেয়েকে এভাবে সকলের সামনে নামিয়ে আনে এবং ধর্ষকের সঙ্গে হাঁটতে বাধ্য করে।

ঘটনাটি ঘটার সময় পুলিশের কাছে খবর পৌঁছালে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ ওই কিশােরীকে উদ্ধার করে।সাব ডিভিশনাল পুলিশ অফিসার দিলীপ সিং বিলওয়াল নির্যাতিতার দায়ের করা অভিযােগের ভিত্তিতে দুটি মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন। একটি মামলা হয়েছে ধর্ষণে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে।দ্বিতীয় এফআইআরটি হয়েছে মেয়েটির পরিবারের লােকজন ও গ্রামবাসীদের বিরুদ্ধে, তাকে মারধর করে গ্রামে ঘােরানাের জন্য। কিশােরীর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে।ধর্ষণে অভিযুক্ত ব্যক্তি দুই সন্তানের বাবা বলে জানিয়েছে পুলিশ।ধর্ষকের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি ও শিশু যৌন নিগ্রহ রােধ আইনের (পকসাে) নানা ধারায় অভিযুক্ত করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button