Uncategorized

ঘর পাচ্ছে পরিযায়ী দুর্গা, বিসর্জন নয়, সংরক্ষণ করা হবে বেহালা বড়িশা ক্লাবের প্রতিমা

নিউজ ডেস্কঃ এবারের পুজোয় নজর কাড়া ক্লাবগুলোর পুজো থিমের মধ্যে একটি ছিলো বেহালা ক্লাবের পুজো থিম। পরিযায়ী শ্রমিকদের কষ্টকর চিত্র তুলে ধরা হয়েছিল উমার প্রতিমার আদলে। আর সেই পুজো উদ্বোধন করতে চতুর্থীর দিন গিয়েছিলেন রাজ‍্যের মূখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ঐদিন উমার ঐ প্রতিমাটি ভীষণ মনে দাগ কেটেছিলো মমতার। আর সেদিনই ক্লাব কতৃপক্ষকে বলে দিয়েছেন এ প্রতিমাকে নিরঞ্জন না করে বরং সংরক্ষণ করা হবে। আর সেই কথামতোই এদিন মন্ত্রী ফারহাদ হাকিম ক্লাব কতৃপক্ষকে জানিয়ে দিলেন সে কথা।

আরও পড়ুন :  নিস্তার নেই ২০২১-এও, মানুষকে জম্বি করে তুলতে পারে, ভয়ংকর প্রলয়ের ভবিষ্যদ্বাণী করে গিয়েছেন নস্ত্রাদামুস

জানা গিয়েছে লকডাউনের ফলে পরিযায়ীদের যন্ত্রণার দলিল হিসেবে সংরক্ষিত করা হবে এই উমাকে।আপাতত রবীন্দ্র সরোবরের প্রদর্শন কক্ষে রেখে দেওয়া হবে উমার মূর্তিটিকে। যদিওবা আগে কথা ছিলো উমাকে রাখা হবে নিউটাউনের ইকো পার্কে। কিন্তু পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত বদলে রবীন্দ্র সরোবরে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

পরবর্তীতে শহরের কোন ব‍্যস্ততম রাস্তার মোড়ে স্হান পাবে মূর্তিটি এমনটাই জানা গিয়েছে। শিল্পী রিন্টু দাসের ভাবনা ও পল্লব ভৌমিকের হাতের তৈরী হয়েছে এই পুজো মন্ডপটি। যার চারিপাশে শুধুমাত্র পরিযায়ী দুঃখ কষ্টের ছাপ ফুটে উঠেছিল। স্বাভাবিক ভাবে দর্শকদের নজর কেড়েছিল মন্ডপটি।

দেবী দূর্গার আদলে এখানে গড়া হয়েছিল ‘পরিযায়ী মা’কে। যার হাতে অস্ত্রের বদলে ছিলো ছোট্ট শিশু।লক্ষী,স্বরসতী ও কার্তিককেও গড়ে তোলা হয়েছিল পরিযায়ী শিশুর আদলে।যাই হোক বর্তমানে রাজ‍্য সরকারের এই সিদ্ধান্তে বেশ খুশি ক্লাব কতৃপক্ষ।

https://www.facebook.com/watch/?v=360268845234601

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button