ভাইরাল

বিশ্বের সবথেকে সুন্দর হাতের লেখার অধিকারি অষ্টম শ্রেণীর এক যুবতী,

সুন্দর হস্তাক্ষর পড়তে সবার ভালো লাগে।কারোর হাতের লেখা অনেকটাই সৌন্দর্য্যপূর্ণ, আবার কারোর হাতের লেখা অনেকটাই ছন্নছাড়া।কিন্তু ১৪ বছরের এক কিশোরীর হাতের লেখা হার মানাবে কম্পিউটার টাইপিংকেও।তার হাতের লেখা এতটাই নিখুঁত যে কোন মানুষ তার প্রশংসা করতে বাধ্য হবেন।অষ্টম শ্রেণীর এই ছাত্রী শুধুমাত্র হাতের লেখার মাধ্যমেই সারা বিশ্বে পরিচিত হয়ে উঠেছেন।

সুন্দর হাতের লেখার অধিকারী কন্যাটির নাম প্রকৃতি মাল্ল্য।প্রকৃতি মাল্ল্য নেপালের সৈনিক ওয়াসিয়া মহাবিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী।নেপালের এক ব্যক্তি এই মেয়েটির হাতের লেখার ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়ে দেন।মুহূর্তের মধ্যে সেই ছবিটি নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে সেই পোষ্ট।অসাধারণ হাতের লেখার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় তারকা এখন প্রকৃতি মাল্ল্য।

আরও পড়ুন :  অবিশ্বাস্য ঘটনা ! গত ১২ বছর ধরে শুধুমাত্র পাথর খেয়ে বেঁচে আছে এক ব্যক্তি

তার লিখার প্রতিটি অক্ষরের গড়ন এবং মাপ প্রায় নিখুঁত। দুটি শব্দের মাঝের ফাঁকও সমান।হস্তাক্ষর বিশেষজ্ঞরাও প্রকৃতির হাতের লেখা দেখে অবাক।এক ঝলকে দেখে বোঝা যাবে না তা হাতে লেখা না কম্পিউটারে।দেখে মনে হয় তা কম্পিউটারের কোন ফন্ট।

নেপাল সরকার প্রকৃতির এই হাতের লেখাকে সেরা হস্তাক্ষরের স্বীকৃতি দিয়েছে।দেশের গৌরব বৃদ্ধির জন্য নেপাল সশস্ত্র বাহিনী পুরস্কৃত করেছে তাকে।পৃথিবীর সবথেকে সুন্দরতম হাতের লেখার অধিকারী হওয়ার যোগ্য প্রকৃতি মাল্ল্য।

Related Articles

Back to top button