নিউজ

ভারতে এই প্রথম এবার সিংহের করোনা সংক্রমণের খবর পাওয়া গেল, হায়দরাবাদের নেহরু জুলজিক্যাল পার্কে

ভারতে এই প্রথম এবার সিংহের করোনা সংক্রমণের খবর পাওয়া গেল, হায়দরাবাদের নেহরু জুলজিক্যাল পার্কে

দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছে। করোনার কবল থেকে রক্ষা পাচ্ছে না জন্তু জানোয়াররাও।ভারতে এই প্রথম এবার সিংহের করোনা সংক্রমণের খবর পাওয়া গেল। জানা গিয়েছে, হায়দরাবাদের নেহরু জুলজিক্যাল পার্কের আটটি এশিয়াটিক সিংহ করোনা সংক্রামিত হয়েছে।সিংহগুলির সোয়াবের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছিল সেন্টার ফর সেলুলার অ্যান্ড মলিকিউলার বায়োলজিতে।তারা চিড়িয়াখানার কর্তৃপক্ষকে জানায় যে সিংহগুলির আরটি-পিসিআর টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।যদিও এই খবর সরকারি ভাবে ঘোষণা করেনি চিড়িয়াখানার আধিকারিক ডঃ সিদ্ধানন্দ কুকৃতী।

 

তিনি জানিয়েছেন এটা সত্যি যে সিংহগুলোর মধ্যে কোভিড লক্ষণ দেখা গিয়েছিল।আক্রান্ত সিংহদের খিদে চলে গিয়েছিল, নাক দিয়ে জল গড়িয়ে পড়ছিল আর তারা কাশছিল৷ এই লক্ষণগুলি দেখেই এনজেপি চিড়িয়াখানার কর্তৃপক্ষ সিংহদের করোনা টেস্ট করার সিদ্ধান্ত নেয়। তারপরেই সংক্রমণের কথা জানা যায়। এখনও সিসিএমবি থেকে সিংহগুলির আরটি-পিসিআর রিপোর্ট হাতে আসেনি।আর তা এলেও ঘোষণা করা ঠিক নয়৷ তবে সিংহগুলি ভালই আছে।

হায়দরাবাদের নেহেরু জিওলজিক্যাল পার্কের এই চিড়িয়াখানাটি প্রায় ৪০ একর এলাকা জুড়ে অবস্থিত।এই পার্কের ১২টি সিংহের মধ্যে ৪টি স্ত্রী এবং ৪টি পুরুষ সিংহ করোনা সংক্রামিত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷চিকিৎসকরা সিংহদের অরোফ্যারিনজিয়াল সোয়াবের নমুনা সংগ্রহ করে সিসিএমবি-তে পাঠায়।এবার সিসিএমবি-র বিজ্ঞানীরা জিনোম সিকোয়েন্সিং করে দেখবে ভাইরাসের কোন স্ট্রেন রয়েছে সিংহগুলির শরীরে।স্বভাবতই এতে ধাক্কা খেয়েছে সর্বভারতীয় চিড়িখানা কর্তৃপক্ষ।

কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের বাড়বাড়ন্ত আটকাতে ইতিমধ্যেই রাজ্যের সমস্ত চিড়িয়াখানা, অভয়ারণ্য বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকার। রাজ্য বন দফতর সোমবার এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।রাজ্য বন দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে, রাজ্যের সব চিড়িয়াখানা, অভয়ারণ্য, পাখিরালয়, ব্যাঘ্র প্রকল্প পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত বন্ধ রাখতে হবে।এর আগে নিউইয়র্কের ব্রংস চিড়িয়াখানায় আটটি বাঘ, সিংহের শরীরে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছিল। এছাড়া হংকং-এ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে কুকুর, বিড়ালরাও।

Related Articles

Back to top button