বিনোদন

সব থেকে সাহসী ওয়েব সিরিজ ‘চরমসুখ’ মুক্তি পেয়েছে, ভুলেও কারোর সামনে ক্লিক করবেন না

যতদিন যাচ্ছে ততই টিভি সিরিয়াল সিনেমার থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম। টিভি প্রোগ্রাম এর চেয়েও ওয়েব সিরিজের উপর দর্শকদের আগ্রহ বাড়ছে। দর্শকদের সামনে উঠে আসছে গতানুগতিক কনটেন্ট এর বাইরে বিভিন্ন গল্পের নতুনত্ব কাহিনী।নতুনত্ব কাহিনীর চলমান ওয়েব সিরিজ এর পাশাপাশি হট অ্যান্ড বোল্ড সিরিজগুলি বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। যৌন উষ্ণতার ছোঁয়া ভরা ওয়েব সিরিজগুলি মন মজিয়েছে অনেক দর্শকের।

charmsukh highway of jiara shukla


ভারতে এমন কিছু নির্দিষ্ট ওটিটি প্ল্যাটফর্ম রয়েছে যাদের প্রায় প্রতিটি ওয়েব সিরিজেই প্রচুর সংখ্যক যৌন দৃশ্য থাকে। দর্শকদের একাংশ এই ধরণের ওয়েব সিরিজ ভীষণ পছন্দ করেন।তেমনি
ভারতের এক ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ‘উল্লু’-তে (Ullu) রিলিজ হওয়া ওয়েব সিরিজগুলি হটনেসের এক অন্য নিদর্শন। ভারতীয় সেন্সরবোর্ডের কারণে পরিচালকেরা চাইলেও সিনেমায় নিজেদের ইচ্ছে মতো অনেক দৃশ্য রাখতে পারেন না। বিশেষত সেন্সর বোর্ডের কাঁচিতে অনেক অন্তরঙ্গ দৃশ্য বাদ পড়ে যায়।

আরও পড়ুন :  অভিনেত্রী এশা গুপ্তা নির্লজ্জের সমস্ত সীমা অতিক্রম করলেন, ভুল করেও পরিবারের সামনে ক্লিক করবেন না

charmsukh highway of jiara shukla
অপরদিকে ওয়েব সিরিজের ক্ষেত্রে কোনো অন্তরঙ্গ দৃশ্য বাদ পড়ার সুযোগ নেই। তাই নির্মাতারা নিজেদের ইচ্ছে মতো যৌনতায় পরিপূর্ণ অন্তরঙ্গ দৃশ্য ওয়েব সিরিজে দেখাতে পারেন।ওয়েব সিরিজের জনপ্রিয়তা এই কারণে অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে।ওয়েব সিরিজগুলির প্রথম সিজনেই থেমে থাকছে নির্মাতারা এমনটা নয়। একের পর এক নতুন সিজন নিয়ে এসে চমকে দিচ্ছে সবাইকে। অ্যাডাল্ট এই সিরিজগুলি দর্শকদের পুরো কাবু করে ফেলেছে।

charmsukh highway of jiara shukla
তেমনই একটি সিরিজ হলো ‘Charmsukh Highway’।উল্লুর ‘Charmsukh’ সিরিজ যেন ওটিটি-তে রাজ করছে। উষ্ণতায় পরিপূর্ণ প্রতিটি সিন কার্যত লজ্জার সব বাঁধ ভেঙে দিয়েছে।এই সিরিজে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছিল সুপ্রিয়া শুক্লা (Supriya Shukla)। তার হট বেড সিন ও শরীরের চাহুনিতে কার্যত সব বাঁধ ভেঙে দিয়েছে।এছাড়াও এই সিরিজে অভিনয় করেছেন ফারুক খান (Farooq Khan), সাদ বাবা (Saad Baba)।

charmsukh highway of jiara shukla

গল্প অনুযায়ী মাঝ রাতে বাবা ও তার মেয়ে গাড়ি করে বাড়ি ফিরছিলেন। কিন্তু গাড়িটি মাঝ পথে খারাপ হয়ে যায়। হাইওয়ের পাশে কিছু না থাকায় একটি বাড়িতে গিয়ে তারা আশ্রয় নেয়। বাড়ির মালিক তার গাড়ি দেয় যাতে মেয়েটির বাবা গাড়ি ঠিক করানোর জন্য মেকানিক ডেকে আনতে পারেন।এমন সময়েই মেয়েটির চাহুনি ও হটনেসে সেই অপরিচিত ব্যক্তির সাথে শারীরিক সম্পর্ক তৈরী হয়। পরে জানা যায় সেই মেয়েটির বিয়ে যে কারনেই তার এমন পদক্ষেপ।

চরমসুখ ওয়েব সিরিজে অভিনেত্রী তার হট অবতারের জন্য বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। একের পর এক কামুকতায় পরিপূর্ণ বেড সিনে রীতিমতো শিহরণ জাগিয়েছেন সকলের মনে।এই সিরিজটি পুরোনো হলেও সুপ্রিয়ার সেই চাহুনি ও বোল্ডানেস কার্যত কোনোদিনও পুরোনো হবে না। দর্শকরা এই সিরিজের দ্বিতীয় পার্ট আসার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন।

Related Articles

Back to top button