চাকরির আপডেটনিউজ

বিরাট সুযোগ! রাজ্যের যে কোনো স্কুলে পড়লেই পাবেন ৫ থেকে ৬০ হাজার টাকা

রাজ্যের মানুষের আর্থ সামাজিক উন্নতির লক্ষ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই একাধিক জনমুখি প্রকল্প চালু করেছেন। কন্যাশ্রী, রুপশ্রী, স্বাস্থ্য সাথী, সবুজ সাথী থেকে শুরু করে স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড সহ একাধিক প্রকল্প রয়েছে।রাজ্যের সাধারণ মানের ছাত্র- ছাত্রী অর্থাৎ পড়ুয়াদের জন্য স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড তো ছিলই। মাধ্যমিক কিংবা উচ্চমাধ্যমিকের গণ্ডি পার হওয়া সাধারণ মানের ছাত্র ছাত্রীরা স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন।

তবে এখানেই শেষ নয়। এবার আরও এক ধাপ এগিয়ে নতুন স্কলারশিপ চালু করেছে রাজ্য সরকার। মাত্র কয়েক মাস আগেই রাজ্যের দুস্ত ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনার খরচ জোগানের পাশাপাশি আর্থিক সহায়তা প্রদানের সুবিধার্থে মুখ্যমন্ত্রীর মা মাটি মানুষের সরকার ‘ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ’ (WB Aikyashree scholarship) চালু করেছে। এ শুধু ঘোষণা বা মুখের কথা নয়,যেমন ভাবনা তেমন কাজ।

রাজ্যের প্রাথমিক পড়ুয়া থেকে শুরু করে স্নাতক পর্যন্ত পাঠরত সংখ্যালঘু ছাত্র- ছাত্রীদের আর্থিক সহায়তা প্রদানের অঙ্গ হিসাবে বার্ষিক বৃত্তি বা স্কলারশিপ দেওয়ার কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে। রাজ্যের শিক্ষা দফতর সুত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী চলতি আর্থিক বছরে অর্থাৎ ২০২২-২৩ অর্থ এবং শিক্ষা বর্ষের জন্য ইতিমধ্যেই রাজ্যের সংশ্লিষ্ট স্কুল এবং কলেজের পাঠরত সংখ্যালঘু ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে আবেদন পত্র গ্রহনের কাজ শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন :  চিন ছেড়ে উত্তরপ্রদেশের আগ্রায় কারখানা খুলল জার্মান জুতো কোম্পানি

এ বিষয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্যের শিক্ষা দফতর থেকে অর্থ দফতর মারফৎ নির্দেশিকাও চলে এসেছে বলে জানা গিয়েছে। আবেদন পত্র গ্রহনের কাজ সম্পন্ন হলেই ছাত্র ছাত্রীদের অথবা তাদের পরিবারের অভিভাবকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে যথা সময়ে বৃত্তি বা স্কলারশিপের টাকা ঢুকিয়ে দেওয়া হবে। রাজ্য শিক্ষা দফতর মারফত এমন খবর পাওয়া গিয়েছে।গোটা রাজ্যের প্রত্যেকটি স্কুলে ইতিমধ্যেই এই প্রকল্পের আওতায় সংখ্যালঘু ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে আবেদন পত্র গ্রহনের কাজ শুরু হয়েছে।

এই স্কলারশিপে আবেদনের জন্য গত বছরের নভেম্বর মাস থেকেই নিজস্ব ওয়েবসাইট চালু করেছে রাজ্য সরকার। চালু করা ওই ওয়েবসাইটে ঢুকে সহজেই আবেদন করা যাবে। পাশাপাশি চলতি আর্থিক বছরে রাজ্য বাজেটে এই খাতে ব্যয়ের ক্ষেত্রে বাড়তি টাকাও বরাদ্দ করা হয়েছে বলে অর্থ দফতর সূত্রে খবর।

এক্ষেত্রে স্কলারশিপ বা বৃত্তিকে টাকার অঙ্কে প্রথম শ্রেনি থেকে স্নাতক পর্যন্ত বেশ কয়েকটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে।যেমন-

১)প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ছাত্র ছাত্রীদের বার্ষিক ১ হাজার ১০০ টাকা দেওয়া হবে।

২)ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেনি পর্যন্ত বছরে ৫ হাজার ৫০০ টাকা দেওয়া হবে।

৩)একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের ১০হাজার ২০০ টাকা দেওয়া হবে।

৪)টেকনিক্যাল ও ভোকেশনাল কোর্সে পাঠরত পুড়ুয়ারা বছরে ১৩হাজার ৫০০ টাকা পাবেন।

৫)স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর পাঠরত ছাত্র ছাত্রীদের ক্ষেত্রে পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে স্কলারশিপ দেওয়া হবে। যেমন -৬০ শতাংশের কম নম্বর পেলে বছরে ৬ হাজার ৬০০ টাকা দেওয়া হবে।আর ৬০ শতাংশের বেশি নম্বর পেলে বছরে ১২ হাজার থেকে ১৮ হাজার টাকা দেওয়া হবে।

৬)ডাক্তারি এবং ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়াদের ক্ষেত্রে ওই একই পদ্ধতিতে যথাক্রমে ২৭ হাজার ৫০০ টাকা থেকে বার্ষিক ৬০ হাজার টাকা পর্যন্ত দেওয়া হবে।

আবেদন পদ্ধতি:-

সরকারি অফিসিয়াল ওয়েব সাইটে https://wbmdfcscholarship.org এ গিয়ে আবেদন করা যাবে।প্রথমে আবেদনকারী প্রার্থীকে সরকারি ওয়েব সাইটে গিয়ে আবেদন ফর্ম ডাউন লোড করতে হবে। তারপর ওই ফর্মে প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা সহ যাবতীয় তথ্য দিতে হবে।

আবেদনের জন্য কি কি ডকুমেন্টস লাগবে:-

১)প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতার যাবতীয় প্রমাণপত্র।

২)আবেদনকারীকে অবশ্যই তার পরিবারের বার্ষিক আয়ের প্রমান পত্র জমা করতে হবে।

৩)এছাড়াও সংশ্লিষ্ট স্কলারশিপের টাকা পাওয়ার সুবিধার্থে আবেদনের সময় প্রার্থীকে তার ব্যাংকের পাশ বইয়ের যাবতীয় তথ্য দিতে হবে।

Related Articles

Back to top button