Advertisement
নিউজ

WB SSC TET Scam: পাহাড় প্রমাণ দুর্নীতি! শিক্ষক ও কর্মী নিয়োগে 900 কোটির লেনদেন, চাকরী হারাতে পারেন বহু শিক্ষক

এই ১৪ জায়গার মধ্যে রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী এবং বর্তমান শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িও ছিল। (WB SSC TET Scam) তাকে প্রায় দীর্ঘ ২৭ ঘন্টা ধরে জেরা করা হয়।

WB SSC TET Scam: স্কুল শিক্ষক নিয়োগে যে পাহাড় প্রমান দুর্নীতি ধীরে ধীরে প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছে, তাতে চাকরি হারানোর আশঙ্কা তৈরি হয়েছে বহু কর্মরত শিক্ষকের। এই শিক্ষকদের সংখ্যা শেষ পর্যন্ত তা কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে, তা এক্ষুনি বলা সম্ভব নয়। যত সংখ্যায় শিক্ষক চাকরি পেয়েছেন, তাদের চাকরি জীবনে ঘোর অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।বহু কর্মরত শিক্ষক তাদের চাকরি হারাতে পারেন।

Advertisement

কিছুদিন আগেই রাজ্যের প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগে 269 জন শিক্ষকের চাকরি বাতিল হয়েছে। এমনকি CBI তদন্তের জন্য 43 হাজার শিক্ষকের সমস্ত ডকুমেন্ট চেয়ে পাঠিয়েছিলেন।সেই অনুযায়ী এর মধ্যেই প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে সমস্ত শিক্ষকের নথিপত্র তুলে দিয়েছে। (WB SSC TET Scam) আর এবার এস এস সির মাধ্যমে স্কুলের শিক্ষক নিয়োগকে কেন্দ্র করে বিরাট দুর্নীতি সামনে এসেছে।

Advertisement

এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ED) কয়েক দিন আগে রাজ্যের ১৪ জায়গায় একযোগে তল্লাশি চালায়। এই ১৪ জায়গার মধ্যে রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী এবং বর্তমান শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িও ছিল। (WB SSC TET Scam) তাকে প্রায় দীর্ঘ ২৭ ঘন্টা ধরে জেরা করা হয়।তল্লাশির পর ED পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে প্রায় ১৭ রকমের নথি উদ্ধার করেছে।

Advertisement

এই সমস্ত নথির মধ্যে রয়েছে ২০১২ সালের TET পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড, পরীক্ষার ফলাফলের জেরক্স কপি, প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতির নোট সহ বহু গুরুত্বপূর্ণ নথি। (WB SSC TET Scam) এই সমস্ত নথি থেকে প্রমাণ হচ্ছে স্কুল শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতিতে এই সমস্ত নথি গুরুত্বপূর্ণ প্রমাণপত্র হিসেবে উঠে এসেছে। প্রাক্তন শিক্ষা মন্ত্রী এবং বর্তমান শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ি তল্লাশি সহ একযোগে তল্লাশি চলে পার্থ ঘনিষ্ঠ অভিনেত্রী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাটে।

Advertisement

অর্পিতার ফ্ল্যাটে তল্লাশির পর সেখান থেকে যা উদ্ধার হয়, তা দেখার পরে রাজ্যের মানুষ চরম অবাক হয়ে গিয়েছেন। ফ্ল্যাটের একটি ঘরের (WB SSC TET Scam) মধ্যে স্তুপাকার করে রাখা ছিল ২১ কোটি টাকা। এই টাকার মধ্যে অধিক ছিল ২০০০ টাকার নোট ও ৫০০ টাকার নোট। এছাড়াও বিদেশী মুদ্রা সহ প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ওপরে অলংকার উদ্ধার করা হয়েছে। আর তার সঙ্গে সেখানে পাওয়া গিয়েছে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র।

এই সব কাগজপত্রের মধ্যে রয়েছে অ্যাডমিট কার্ড, পরীক্ষার ফলাফলের সংশোধিত কপি সহ একাধিক নথিIED সূত্রের খবর অনুযায়ী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে তল্লাশি চালানোর সময় যে সমস্ত নথি উদ্ধার করেছে, তার মধ্যে বেশ কিছু কাগজ যেমন পাওয়া গিয়েছে, যার মধ্যে লেখা রয়েছে ওয়ান সি আর। (WB SSC TET Scam) আবার কোনোটায় ফোর সিআর লেখা রয়েছে।মনে করা হচ্ছে এই সিআর কথার অর্থ কোটি।

টাকার অংক বোঝাতেই হয়তো এই ধরনের শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে।এই দুর্নীতিতে পার্থর ঘনিষ্ঠ বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ও জড়িত বলে মনে করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং তার ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায় গ্রেপ্তার হয়েছেন। গ্রেফতার হওয়ার পরে পার্থকে চিকিৎসার জন্য (WB SSC TET Scam) এসএসকেএমে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয় ব্যাঙ্কশাল কোর্ট।

সেই নির্দেশে পরিপ্রেক্ষিতে পুনরায় হাইকোর্টে আবেদন করে ED তার ভিত্তিতেই আদালত নির্দেশ দেয় SSKM এ নয়, ভুবনেশ্বরে AIIMS পার্থের চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হবে। আদালত নির্দেশ দেয় সেখানে চিকিৎসার রিপোর্টসহ যাবতীয় তথ্য আদালতকে জানাতে হবে (WB SSC TET Scam)। ইতিমধ্যেই আদালতের নির্দেশে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ভুবনেশ্বরে এইমসে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

রাজ্যজুড়ে ED-র এই বিরাট অভিযানের ফলে যথেষ্ট অস্বস্তিতে রাজ্য সরকার। যদিও শাসক দল। তৃণমূলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পার্থ চট্টোপাধ্যায় আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পার্থ ঘনিষ্ঠ অর্পিতার বাড়িতে পাওয়া নগদ ২১ কোটি টাকা SSC TET দুর্নীতির একটি অংশের টাকা বলেই মনে করা হচ্ছে।

প্রকাশ্যে আসা সমস্ত ঘটনা থেকে মনে করা হচ্ছে শুধুমাত্র টাকার বিনিময়েই সরকারি চাকরি দেওয়া হয়েছে। বিপুল পরিমাণ টাকার বিনিময়ে চাকরি দেওয়া হয়েছে। SSC-র মাধ্যমে স্কুলের শিক্ষক নিয়োগকে কেন্দ্র করেই যে শুধু দুর্নীতি হয়েছে তা নয়, পরবর্তীতে জানা যাচ্ছে গ্রুপ সি এবং গ্রুপ ডি নিয়োগের (WB SSC TET Scam) ক্ষেত্রেও দুর্নীতির প্রমাণ আসতে শুরু করেছে।

সূত্রের খবর একটি চাকরির জন্য ১০ থেকে ১৫ লক্ষ করে টাকা নেওয়া হয়েছে। এই রকম টাকা দিয়ে চাকরি প্রাপকের সংখ্যা ৬০ থেকে ৭০ হাজার। যেখানে দেওয়া টাকার মোট অংক প্রায় ৯০০ কোটি টাকা দাঁড়িয়ে যাচ্ছে। এখন প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, এই শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে CBI এবং ED যখন তদন্ত করছে।

তখন কিভাবে পার্থ এবং তার ঘনিষ্ঠ বান্ধবী অর্পিতার বাড়ি থেকে এত পরিমাণ টাকা এবং নথিপত্র পাওয়া গিয়েছে, সেটা তারা তখনো পর্যন্ত বাড়িতে রেখে দিয়েছেন কিভাবে? প্রশ্ন উঠছে টাকা এবং নথিপত্র সরানো সম্ভব হয়নি কি? নাকি অন্য কিছু। যদিও সেই সম্বন্ধে বিস্তারিতভাবে (WB SSC TET Scam) এখনও কিছু জানা যায়নি। তল্লাশি চালানোর পরে যা প্রকাশ্যে এসেছে তাতে মনে করা হচ্ছে এটা দুর্নীতির হিমশৈলের চূড়ামাত্র।

Related Articles

Back to top button