লাইফস্টাইল

শার্ট তো আমরা পরি, কিন্তু কেন ছেলেদের ও মেয়েদের শার্টের বোতাম এক দিকে হয় না ? জানুন এর রহস্য

বর্তমান সময়ে ছেলেদের সাথে মেয়েরা যুগের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সব ক্ষেত্রে কাজ করছেন। এই সময়ে ইউনিসেক্স ফ্যাশন খুব আলোচিত। ইউনিসেক্স ফ্যাশন মানে এমন পোশাক যা পুরুষ এবং মহিলা উভয়ই পরতে পারে। চশমা থেকে শুরু করে জিন্স এবং আরও অনেক ধরনের পোশাকই এখন ইউনিসেক্স হিসেবে বানানো হয়।আগের যুগে সাধারনত শুধু পুরুষরাই শার্ট পরতেন। কিন্তু বর্তমান সময়ে নারীরাও হামেশাই শার্ট পরছেন।

তবে এই দুটি শার্টের মধ্যে একটি বড় পার্থক্য রয়েছে। যেখানে পুরুষদের শার্টের বোতামটি ডানদিকে থাকে, যেখানে মহিলাদের শার্টের বোতাম সবসময় বাঁ দিকে থাকে। উহু ফ্যাশন করে এমনটা মেয়েরা পরেন একথা মোটেও ঠিক নয়।শার্ট তো পরি আমরা, কিন্তু কখনও ভেবেছি কি ছেলেদের ও মেয়েদের শার্টের বোতাম এক দিকে হয় না কেন?

ভাববার বিষয়ও নয়। ব্যস্ত জীবনে আর অত ভাববার সময়ই বা কোথায়! শার্ট পরার সময় একবার ভাল করে ভেবে দেখবেন কথাটা ঠিক কিনা।এখন প্রশ্ন উঠবে এর পিছনে রহস্যটাই বা কী?এর পিছনে একটি বিশেষ কারণ রয়েছে। এই পার্থক্য নিয়ে অবশ্য নানা মুনির নানা কথা। রয়েছে আলাদা আলাদা উত্তর। আজ আমরা আপনাকে জানাবো তারই মধ্যে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ যা হয়তো আপনিও জানেন না।

আরও পড়ুন :  এবার এই গান শুনে মশা 'মাতাল' হবে

এই বিশেষ কারণ জানতে চলে যেতে হবে ইতিহাসের পাতায়। ইতিহাস বলছে আগের যুগে পুরুষরা তাদের ডান হাতে তরোয়াল ধরতেন অপরদিকে মহিলারা বাম হাত শিশুদের ধরে রাখতেন।এমন অবস্থায় যখন পুরুষদের শার্টের বোতাম খুলতে বা লাগানোর প্রয়োজন হতো তখন তারা বাম হাত ব্যবহার করতেন আর শার্টের ডান দিকে বোতাম থাকলে সুবিধা হতো।

একইভাবে মহিলারা তাদের সন্তানকে বাঁদিকে ধরে রাখতেন। বাচ্চাদের স্তন্যপান করানোর জন্য তাদের শার্টের বোতাম খুলতে ডান হাত ব্যবহার করতে হতো সেই হিসেবে বামপাশে বোতাম থাকলে সুবিধা হত।এই সুবিধার কথা মাথায় রেখে ছেলেদের জামার বোতাম ডানদিকে ও মেয়েদের বোতাম বামদিকে তৈরী করা হতো।

তবে এটাই একমাত্র ধারণা নয় এই যুক্তির বাইরেও আরো একটি ইতিহাস সংযুক্ত রয়েছে যা নেপোলিওনের সঙ্গে সম্পর্কিত।নেপোলিওনের সঙ্গেও কিন্তু সংযুক্ত রয়েছে বোতামের ইতিহাস। বলা হয়ে থাকে যে নেপোলিয়ন বোনাপার্ট আদেশ দিয়েছিলেন যে মহিলাদের শার্টের বোতাম বাম দিকে থাকা উচিত।

প্রচলিত উপাখ্যান অনুসারে নেপোলিয়ন সব সময় তাঁর জামায় একটি হাত রাখতেন। অনেক মহিলা তাঁকে অনুকরণ করতে শুরু করেন। এমন পরিস্থিতিতে এটি যাতে না ঘটে তার জন্য নেপোলিয়ন আদেশ দিয়েছিলেন মহিলাদের শার্টের বোতাম বাম দিকে থাকা উচিত।যদিও এর কোনও সুনির্দিষ্ট প্রমাণ নেই। কিন্তু গল্প-কাহিনির ভিত্তিতে মানুষ এটি সত্য বলে বিশ্বাস করে চলে এসেছে বছরের পর বছর।

আবার কেউ কেউ মনে করেন আগের যুগে নারীরা উভয় পা একই পাশে ঝুলিয়ে ঘোড়ায় চড়তেন। এমন অবস্থায় বাম দিকে বোতাম করা হলে, বাতাস তার শার্ট ভিতরে নিয়ে যেত এবং বিপরীত দিকে এগোতে সহায়তা করত। এছাড়াও কোনো কোনো বিশেষজ্ঞ বলছেন নারী ও পুরুষের পোশাকের মধ্যে পার্থক্য তৈরি করতে তাদের শার্টের বোতামগুলো আলাদা দিকে লাগানোর প্রচলন শুরু হয়।

উপরের কারণগুলো শুনে বোকা বোকা মনে হতে পারে।এখানে প্রদত্ত তথ্য শুধুমাত্র অনুমান এবং তথ্যের উপর ভিত্তি করে। তবে কারণ যাই থাকুন না কেন এর পিছনের ঘটনাটা তো সত্যি যে মহিলাদের শার্টের বাঁ দিকে আর পুরুষদের ডান দিকে বোতাম থাকে।

Related Articles

Back to top button