Free Ration – নতুন বছরে বিনামূল্যে রেশন ? কি বলছে রাজ্য সরকার?

তবে কি বাড়বে বিনামূল্যে রেশন (Free Ration) সময় সীমা ?

দেশের মোট জনসংখ্যার একটা বড়ো অংশই মূলত রেশনিং (Free Ration) ব্যবস্থার ওপর নির্ভরশীল। এই রেশনিং ব্যবস্থায় পূর্বে গ্ৰাহকদের স্বল্পমূল্যে খাদ্যশস্য দেওয়া হতো। এরপর গরীব-দুঃস্থদের প্রথম বিনামূল্যে রেশন (Free Ration) প্রদানের ব্যবস্থা শুরু হয়েছিল মূলত ২০২০ সালের মহামারির সময়কাল থেকে।

এরপর গত ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২-এ মন্ত্রীসভার বৈঠকে আগামী ৩মাসের জন্য পুনরায় গরীবদের বিনামূল্যে রেশন (Free Ration) প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়। তথ্য অনুযায়ী চলতি ডিসেম্বর মাসেই শেষ হতে চলেছে এর মেয়াদ। প্রায় ৮০ কোটি রেশন কার্ডের গ্ৰাহক ২০২০ সালে এই সুবিধার লাভ উঠিয়েছেন।

Advertisement

Awas Yojana 2022 list – আবাস যোজনায় লিস্টে নাম না এলে, এই কাজটি করতে পারেন! কেন্দ্র সরকারের নতুন নির্দেশিকা।

পাশাপাশি মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পর কি তাহলে আর এই সুবিধা পাবেন না রেশন কার্ডের গ্ৰাহকরা? গভীর এক প্রশ্ন জেগেছে তাদের মনে। তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী গরীব কল্যাণ অন্ন যোজনা(PMGKAY)-র অধীনে রয়েছেন প্রায় ৮০ কোটি মানুষ।

এই যোজনাটি হল বিশ্বের বৃহত্তম খাদ্য প্রকল্প। বর্তমানে এই প্রকল্পে আরো ৩.৫ লক্ষ কোটি মানুষ যোগদান করেছেন। এই কোটি-কোটি মানুষ ২০২০ সাল থেকে শুরু করে চলতি ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত বিনামূল্যে ৫কেজি করে খাদ্যশস্য পেয়ে চলেছেন।

তবে সমস্ত বিষয়টি জাতীয় খাদ্য নিরাপত্তা আইন ( NFSA) অনুযায়ী হয়ে এসেছে। পাশাপাশি রাজ্য সরকারের তরফ থেকে জানা যাচ্ছে,আগামী বছর অর্থাৎ ২০২৩ পর্যন্ত চালু থাকতে পারে বিনামূল্যে রেশন (Free Ration) প্রদানের এই ব্যবস্থা। তবে এখনও পর্যন্ত খোলসা করে এ বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

Ration card – রাজ্য রেশন দপ্তরের জারি হল নতুন নির্দেশিকা। নিজের রেশন কার্ড চালু রাখতে পড়ুন।

তাই গ্ৰাহকরা এখন অধীর আগ্রহে রয়েছেন। সবকিছু ঠিক থাকলে খুব শীঘ্রই এই ব্যবস্থা পুনরায় চালু করে দেওয়া হবে। কিন্তু এই রেশনিং ব্যবস্থাও দুর্নীতির উর্ধ্বে নয়, এখানেও বহু মানুষ জালিয়াতি করে দিনের পর দিন বিনামূল্যে খাদ্যশস্য পেয়েই যাচ্ছেন।

ঘটনা খানিক টের পেতেই দোটানায় রয়েছেন রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকার। তাই আপাতত সকলেই চুপ এ ব্যাপারে।
এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবরের আপডেট সবার আগে পেতে হলে এই ওয়েবপোর্টালটি ফলো করতে ভুলবেন না।
Written by Arpita Sen.

সকালের বার্তার নিউজ সবার আগে পেতে Follow করুন সকালের বার্তার গুগল নিউজ, সকালের বার্তা ফেসবুক পেজ, সকালের বার্তা টেলিগ্রাম গ্রুপ ও WhatsApp Group.

Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *