কেন্দ্রীয় সরকারের এই নয়া প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের প্রতিটি দরিদ্র পরিবারকে ১২,০০০ টাকা করে দেওয়া হচ্ছে।

Advertisement

ভারতবর্ষের বিভিন্ন গ্রামীন অঞ্চলে এখনও এমন অনেক পরিবার রয়েছে যাদের মাথার ওপরে নিজস্ব ছাদ নেই। যেখানে মাথার ছাদ নেই সেখানে শৌচালয় থাকাটা যেন অবাস্তব ব্যাপার। এসব গ্রামীন এলাকার মানুষজন মলমূত্র ত্যাগ করার জন্য উন্মুক্ত জায়গাকেই বেছে নেন। উন্মুক্ত জায়গায় মলমূত্র ত্যাগ করার ফলে দূষণ সৃষ্টি হয়। পরিবেশ দূষিত হয় যার প্রভাব পড়ে সমগ্র জীব কূলের উপর।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now
Advertisement

এই সব দারিদ্র্য সীমার নীচে বসবাসকারী মানুষরা একটা মাথা গোঁজার ঠাঁই নির্মাণ করতে পারে না,সেখানে শৌচাগার নির্মানের দিকে তারা সেভাবে গুরুত্ব দেন না। তাই মাঠে ঘাটে তারা শৌচ কর্ম করেন। পরিবেশে যাতে এই দূষনের মাত্রা না বাড়ে সেই কারণেই আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বেশ কিছু বছর আগেই পরিবেশ দূষণ রোধ করার লক্ষ্যে দেশ জুড়ে তার স্বপ্নের প্রকল্প স্বচ্ছ ভারত অভিযান মিশন শুরু করেছিলেন।

Advertisement

আরও পড়ুন- Adenovirus Symptoms – আতঙ্কে বাংলা! বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা, কী গাইডলাইন স্বাস্থ্য ভবনের?

এই প্রকল্পের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার দেশজুড়ে পরিবেশ পরিচ্ছন্ন করার উপরে গুরুত্ব আরোপ করেছেন। অন্যদিকে দেশের নিম্ন মধ্যবিত্ত এবং দরিদ্র শ্রেণীর মানুষদের জন্য এই প্রকল্পের অধীনে একাধিক সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প রয়েছে, তার মধ্যে একটি হল Swachh Bharat Mission প্রকল্প। এই প্রকল্পের মাধ্যমে কেন্দ্র সরকার ভারতের সকল গরীব পরিবারদের জন্য স্বাস্থ্যকর শৌচাগারের ব্যবস্থা করে থাকে।

এই প্রকল্পটি চালু করার উদ্দেশ্যই হল ভারতবর্ষের গ্রামীন অঞ্চলের সমস্ত পরিবারের কাছে নিজস্ব শৌচালয়ের ব্যবস্থা করা। এই প্রকল্পের মাধ্যমে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে অর্থ দেওয়া হয়, যাতে এই অর্থ দিয়ে তারা নিজের বাড়িতে শৌচাগার নির্মাণ করিয়ে সেখানেই শৌচকর্ম করতে পারেন। এতে পরিবেশও দূষনের হাত থেকে রক্ষা পায়।

শৌচাগার নির্মাণের জন্য কত টাকা দেওয়া হয়?

স্বচ্ছ ভারত মিশন গ্রামীন টয়লেট যোজনার মাধ্যমে কেন্দ্র সরকারের তরফে সকল দরিদ্র পরিবারকে শৌচালয় নির্মাণের জন্য ১২,০০০ টাকা দেওয়া হয়। এই যোজনার সুবিধা লাভ করতে হলে কি কি যোগ্যতা থাকতে হবে?

১) আবেদনকারীকে অবশ্যই ভারতীয় স্থায়ী নাগরিক হতে হবে।
২) আবেদনকারীর পরিবারের বার্ষিক আয় খুবই কম হতে হবে।
৩) আবেদনকারীর আধার কার্ড থাকা বাধ্যতামূলক।
৪) শৌচাগার নির্মাণ করার মতো আবেদনকারীর নিজস্ব একটু জায়গা থাকতে হবে।
৫)যদি কোনো নাগরিকের বাড়িতে আগে থেকেই শৌচালয় থাকে বা আগে কখনো একবার এই প্রকল্পের মাধ্যমে পাওয়া অর্থ দিয়ে শৌচাগার নির্মাণ করিয়ে থাকেন তাহলে তিনি আর আবেদন করতে পারবেন না।

আরও পড়ুন- Bandhan Bank Recruitment – উচ্চ মাধ্যমিক পাশে শুধুমাত্র ইন্টারভিউয়ের ভিত্তিতে নিয়োগ শুরু বন্ধন ব্যাংকে।

আবেদন করবেন কিভাবে?

বাড়িতে বসে স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে অথবা কোনো কম্পিউটার সেন্টারে গিয়ে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। বাড়িতে বসে স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে আবেদন করার পদ্ধতিটি দেখে নিন-
১) প্রথমে google search box এ এই প্রকল্পের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://swachhbharaturban.gov.in/i hhl/InvestorRegistration.aspx যেতে হবে।
২) এরপর রেজিস্ট্রেশনের জন্য দেওয়া লিঙ্কে ক্লিক করে প্রয়োজনীয় যাবতীয় তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

৩) তারপর সরকারের তরফ থেকে একটি User Id ও Password দেওয়া হবে। সেই পাসওয়ার্ডটি হবে আপনি রেজিস্ট্রেশন করার সময় যে মোবাইল নাম্বার দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করেছেন সেই নম্বরের শেষ চারটি ডিজিট।
৪) এরপর সেই User Id ও Password দিয়ে Login করলে একটি অনলাইন অ্যাপ্লিকেশনের ফর্ম আসবে। সেখানে নির্দিষ্ট স্থান অনুযায়ী প্রয়োজন মতো তথ্য দিয়ে ফিলাপ করে next button এ ক্লিক করতে হবে।
৫) সবশেষে যাবতীয় প্রয়োজনীয় তথ্য স্ক্যান করে আপলোড করে সাবমিট বাটনে ক্লিক করলেই আপনার অ্যাপ্লিকেশন হয়ে যাবে।

আবেদন করার সময় কি কি ডকুমেন্টস জমা দিতে হবে?

প্রয়োজনীয় যে সমস্ত ডকুমেন্টসগুলি স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে সেগুলি হল-
১) আধার কার্ড।
২) ভোটার কার্ড।
৩) পঞ্চায়েত প্রদত্ত ইনকাম সার্টিফিকেট।
৪) ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের প্রথম পাতা স্ক্যান করা।
৫) এক কপি রঙিন পাসপোর্ট সাইজের ফটো।

আবেদন করার শেষ তারিখ?

এই স্বচ্ছ ভারত মিশন গ্রামীন টয়লেট যোজনায় আবেদন করার জন্য কোনো নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়নি।আপনি যখন খুশি আবেদন করতে পারেন। যোগ্য প্রার্থী বাছাই করা হবে কিভাবে?আবেদনকারীদের জমা করা আবেদন পত্র সহ যাবতীয় ডকুমেন্টস খতিয়ে দেখে একটি Enquiry করা হবে। Enquiry সম্পন্ন হলে যোগ্য প্রার্থীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি এই অর্থ ট্রান্সফার করে দেওয়া হবে।

Advertisement
About Author
Prabir Biswas

Prabir Biswas

আমি গত চার বছর ধরে সকালের বার্তা ডিজিটাল নিউজ মিডিয়ায় কাজের সঙ্গে যুক্ত আছি। আমি মুলত যেকোনো ধরণের জেনারেল নিউজ যেমন সরকারি চাকরির আপডেট, স্কলারশিপ, সরকারি প্রকল্প, অর্থনৈতিক, টেকনোলজি ইত্যাদি বিষয়ে লেখায় পারদর্শী।

Leave a comment