Birth Certificate – আর আধার কার্ড নয় লাগবে বার্থ সার্টিফিকেট ! বার্থ সার্টিফিকেট না থাকলে বন্ধ হবে এই সুবিধা গুলি।

Advertisement

Birth Certificate – বর্তমানে আধার কার্ড একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নথি বলে আমরা মানি। কারন যে কোন কাজ আধার কার্ড ছাড়া করা প্রায় অসম্ভব বললেই চলে। তবে এবার থেকে আধার কার্ডের দিন শেষ হতে চলেছে। আগের মত এখন আধার কার্ড দেখিয়ে সমস্ত কাজ করা যাবে না।এবার আধার কার্ডের জায়গা দখল করে নেবে বার্থ সার্টিফিকেট (Birth Certificate) বা জন্ম শংসাপত্র। এখন থেকে সমস্ত সরকারি কাজে নিজের পরিচয়পত্র হিসেবে বার্থ সার্টিফিকেট দেখাতে হবে।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

Registration of Births and Deaths (Amendment) Bill, 2023.

Advertisement

অর্থাৎ এবার থেকে বার্থ সার্টিফিকেট (Birth Certificate) প্রধান গুরুত্বপূর্ণ নথি হতে চলছে। সম্প্রতি লোকসভা ও রাজ্যসভায় ২০২৩ জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধ (সংশোধনী) আইন পাস করিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই আইনে ১৪ টি সংশোধনী এনে গত ১ অগস্ট লোকসভা ও রাজ্যসভায় Registration of Births and Deaths (Amendment) Bill, 2023 পেশ করা হয়।

Advertisement

এই আইন পাশ করার ফলেই সরকারি ও বেসরকারি কাজের ক্ষেত্রে ভারতীয় নাগরিকদের পরিচয়ের প্রধান নথি হিসেবে বার্থ সার্টিফিকেটকে বিবেচনা করা হয়েছে। আগামী ১ অক্টোবর থেকে এই আইন কার্যকরী হবে। অর্থাৎ ১ অক্টোবর থেকে যে কোন কাজে নিজের পরিচয় এর প্রধান নথি হিসেবে আপনাকে বার্থ সার্টিফিকেট (Birth Certificate) দেখাতে হবে।

তবে পাতলা কাগজের যে বার্থ সার্টিফিকেট আছে তা কিন্তু প্রধান পরিচয়পত্র হবে না। কেন্দ্রীয় সরকার বিশেষ এক ধরনের ডিজিটাল বার্থ সার্টিফিকেট নিয়ে আসতে চলেছে। এর জন্য সরকার এটিএম কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্সের মতো বিশেষ ধরনের চিপ দেওয়া ডিজিটাল বার্থ সার্টিফিকেট কার্ড (Digital Birth Certificate) নিয়ে আসতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন – PAN Card – প্যান কার্ড জরুরি বার্তা ! নতুন করে করতে হবে এই কাজ। আয়কর দফতর কী বলছে জানুন।

বার্থ সার্টিফিকেট (Birth Certificate) যে সমস্ত কাজে লাগবে ?

  • ১) আগামী ১ অক্টোবর থেকে বার্থ সার্টিফিকেট ছাড়া স্কুল-কলেজে সহ যে কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই ভর্তি হওয়া যাবে না।
  • ২) সরকারি চাকরির পরীক্ষা দেওয়ার জন্যও লাগবে বার্থ সার্টিফিকেট (Birth Certificate)।
  • ৩) ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট, আধার কার্ড করা, ভোটার আইডি তৈরি সহ আরও বহু দরকারি কাজে বার্থ সার্টিফিকেট লাগবে।
  • ৪) এছাড়াও যে কোন বেসরকারি কাজের ক্ষেত্রেও এই একই নিয়ম কার্যকরী হতে চলেছে।

এই বার্থ সার্টিফিকেটকে (Birth Certificate) প্রধান নথি হিসেবে ব্যবহারের জন্য কেন্দ্র ১৯৬৯ সালে চালু হওয়া জন্ম-মৃত্যু রেজিস্ট্রেশন আইনে আমূল বদল এনেছে। মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে এবার থেকে সন্তান জন্মের ৩০ দিনের মধ্যে বার্থ সার্টিফিকেট করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অর্থাৎ কেন্দ্রীয় সরকার খুব শীঘ্রই বিশেষ ধরনের ডিজিটাল বার্থ সার্টিফিকেট নিয়ে আসতে চলেছে।

আরও পড়ুন – Free Aadhar update – আধার কার্ডের এই গুরুত্বপূর্ণ কাজটি না করলে আপনার আধার বাতিল হয়ে যেতে পারে।

Advertisement
JoinJoin