Advertisement
নিউজ

Farmer Scheme: সমস্ত কৃষকেরা আগস্ট মাসে এই পাঁচটি প্রকল্পের টাকা পেতে চলেছেন, কোন কোন প্রকল্প জেনে নিন

এ সমস্ত কৃষকদের আয় সুনিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে এবং গরীব চাষিদের জন্য আর্থিক সাহায্য করার লক্ষ্য মাথায় নিয়েই পশ্চিমবঙ্গ সরকার চালু করেন এই সব প্রকল্পের (Farmer Scheme) ব্যবস্থা করেছেন।

Farmer Scheme: কেন্দ্র তথা রাজ্যের অর্থনীতির মেরুদন্ড হলো কৃষি।কৃষিক্ষেত্রে কৃষক বন্ধুদের বিভিন্ন ধরণের সহায়তা করে থাকে কেন্দ্র এবং রাজ্য। বাংলা সহ গোটা ভারতেই কৃষকদের জন্য নানা প্রকল্প রয়েছে।অনেক সময় দেখা যায় কৃষক বন্ধুরা চাষ করার সময় তাদের হাতে সেই পরিমাণ অর্থ মজুত থাকে না, এ সমস্ত কৃষকদের আয় সুনিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে এবং গরীব চাষিদের জন্য আর্থিক সাহায্য করার লক্ষ্য মাথায় নিয়েই পশ্চিমবঙ্গ সরকার চালু করেন এই সব প্রকল্পের (Farmer Scheme) ব্যবস্থা করেছেন।

Advertisement

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের উদ্যোগে কৃষকদের সাহায্য করার খাতিরে বিভিন্ন প্রকল্পের অধীনে কৃষকদের অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। অন্যদিকে ভারতের কেন্দ্র সরকারের তরফেও কৃষকদের বিভিন্ন প্রকল্পে অনুদান দেওয়া হয়ে থাকে। যাতে কৃষকরা কৃষিক্ষেত্রে যন্ত্রপাতি, সার, রাসায়নিক, কীটনাশক সহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় দ্রব্য কিনতে পারেন।

Advertisement

এছাড়াও কেন্দ্র সরকারের তরফে কৃষকদের ভিন্ন ভিন্ন ক্ষেত্রে সহায়তার জন্য ভিন্ন ভিন্ন জনকল্যাণমূলক প্রকল্প চালু করা হয়েছে। এরূপ কতগুলি প্রকল্পে কৃষকরা আগস্ট মাসে অনুদান পেতে চলেছেন।কৃষকরা আগস্ট মাসে কোন কোন প্রকল্পের (Farmer Scheme) টাকা পেতে চলেছেন দেখে নিন-

Advertisement

১)কৃষক বার্ধক্য ভাতা :-

Advertisement

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে কৃষকদের সাহায্য করার ক্ষেত্রে যে সকল জনকল্যাণমূলক প্রকল্পগুলি চালু করা হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য প্রকল্প হল কৃষক বার্ধক্য ভাতা। পশ্চিমবঙ্গের যে সকল কৃষকদের বয়স অন্ততপক্ষে ৬০ বছর এবং যারা বয়স জনিত কারণে কৃষিকাজ করতে পারছেন না, সেই সকল কৃষকদের পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে কৃষক বার্ধক্য ভাতা প্রকল্পের আওতায় অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। এই প্রকল্পের আওতায় কৃষকদের প্রতিমাসে ১০০০ টাকা করে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। কৃষকরা আগস্ট মাসেও এই কৃষক বার্ধক্য ভাতার টাকা পেতে চলেছেন।

২)কিষাণ মানধন যোজনা:-

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্যোগে ভারতের কেন্দ্র সরকারের তরফে বয়স্ক কৃষকদের সাহায্য করার ক্ষেত্রে এই কিষাণ মানধন যোজনার অধীনে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। যে সকল কৃষকদের বয়স ১৮ থেকে ৪০ তারা এই প্রকল্পের আবেদন করতে পারেন।তাদের ৬০ বছর বয়স হলে এই প্রকল্পের অধীনে পেনশন প্রদান করা হয়ে থাকে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে। এই যোজনার অধীনে কৃষকদের প্রতি মাসে ৩০০০ টাকা প্রদান করা হয়ে থাকে। এই যোজনার অধীনে পেনশনের জন্য যে সকল কৃষকরা আবেদন করেছিলেন তারা আগস্ট মাসে টাকা পেতে চলেছেন।

৩)কৃষকবন্ধু প্রকল্প:-

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে কৃষকবন্ধু প্রকল্প চালু করা হয়েছে। কৃষকদের চাষ আবাদের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সার, বীজ, কীটনাশক এবং কৃষিকাজে প্রয়োজনীয় অন্যান্য দ্রব্য কেনার ক্ষেত্রে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। এই প্রকল্পের অধীনে কৃষকদের জমির পরিমাণের ওপর ভিত্তি করে ২০০০ থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। ইতিমধ্যেই এই প্রকল্পের অধীনে কৃষকদের অনুদান প্রদান করা শুরু হয়ে গেছে।

যে সকল কৃষকরা এখনো পর্যন্ত এই প্রকল্পের অধীনে টাকা পাননি তারা আগত আগস্ট মাসে এই প্রকল্পের অনুদান পেতে চলেছেন। তবে কৃষকদের টাকা পাওয়ার ক্ষেত্রে একটি মাত্র শর্ত রয়েছে।কেবলমাত্র যে সকল কৃষকদের এই প্রকল্পের স্ট্যাটাসে Account Valid লেখা রয়েছে, তারাই আগত আগস্ট মাসে এই প্রকল্পের (Farmer Scheme) আওতায় টাকা পাবেন।

৪)কিষাণ ক্রেডিট কার্ড :-

চাষ করার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন দ্রব্য এবং সার, রাসায়নিক, কীটনাশক ইত্যাদি কেনার ক্ষেত্রে কৃষকদের যাতে ঋণে জর্জরিত না হতে হয় সেজন্য কৃষকদের জন্য এই প্রকল্পের ব্যবস্থা করা হয়েছে।এই প্রকল্পের অধীনে বিভিন্ন ব্যাংকের তরফে সর্বোচ্চ ৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ প্রদান করা হয়ে থাকে। যদিও বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই টাকার পরিমাণ কৃষকদের জমির পরিমাণ এবং কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের ক্রেডিট লিমিটের ওপর নির্ভর করে। যারা এই প্রকল্পের অধীনে ঋণের জন্য আবেদন করেছিলেন তারা আগস্ট মাসে এই প্রকল্পের (Farmer Scheme) টাকা পেতে চলেছেন।

৫)বাংলা শস্য বীমা :-

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের তরফে আয়োজিত এই জনকল্যাণমূলক প্রকল্পে কৃষকদের সাহায্য করার জন্য অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে কৃষকদের ফসলের প্রভূত ক্ষয়ক্ষতি হয়ে থাকে।একারণে কৃষকরা অনেক সময় সর্বশান্ত হয়ে যান। আর তাই এই প্রকল্পের অধীনে কৃষকদের শস্যের বীমা করা হয়ে থাকে। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে কৃষকদের ফসলের ক্ষতি হলে এই প্রকল্পের অধীনে কৃষকদের (Farmer Scheme) ক্ষতির পরিমাণ অনুসারে টাকা দেওয়া হয়ে থাকে।এই প্রকল্পের অধীনেও কৃষকরা সামনের মাসে অর্থাৎ আগস্ট মাসে টাকা পেতে চলেছেন।

Related Articles

Back to top button