নিউজ

NPS scheme: স্ত্রীর ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করতে আজই তার নামে এই অ্যাকাউন্ট খুলে ফেলুন, প্রতি মাসে নিশ্চিত হবে 44 হাজার টাকা

NPS scheme: এমনই একটি স্কিম, যাতে বিনিয়োগ করে আপনি আপনার স্ত্রীর মতো পরিবারের যে কোনো সদস্যকে বার্ধক্য স্বয়ং সম্পূর্ণতা উপহার দিতে পারেন।সকলের সমস্যার কথা মাথায় রেখেই এই স্কিম নিয়ে এসেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

NPS scheme:  বর্তমানের সাথে পরিবারের ভবিষ্যৎও যেন সুরক্ষিত থাকে এই চিন্তা সকলের থাকে।স্ত্রী-সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা সর্বদাই চিন্তা করেন পরিবারের প্রধান সদস্য। তারা এটাই ভাবেন নিজেদের অবর্তমানে তার স্ত্রীর কী হবে। স্ত্রীকে আবার অন্যের উপর নির্ভরশীল হতে হবে না তো। তার উপর অগ্নিমূল্য বাজারে বর্তমান পরিস্থিতিতে কোথায়ও বিনিয়োগ করাও খুবই ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়। যেখানেই বিনিয়োগ করবেন সেখানেই কোনও না কোনও সমস্যা থাকে।

তাই ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করার জন্য অনেক সহায়ক স্কিম (NPS scheme)উপলব্ধ রয়েছে। নিউ পেনশন সিস্টেম (এনপিএস) এমনই একটি স্কিম, যাতে বিনিয়োগ করে আপনি আপনার স্ত্রীর মতো পরিবারের যে কোনো সদস্যকে বার্ধক্য স্বয়ং সম্পূর্ণতা উপহার দিতে পারেন।সকলের সমস্যার কথা মাথায় রেখেই এই স্কিম নিয়ে এসেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই স্কিমে ইনভেস্ট করে কিছুটা নিশ্চিত হতে পারবেন আপনি।

তবে পেনশন এই শব্দটি শোনামাত্র আমাদের সকলের মনে আর একটি শব্দের উঁকি দেয় তা হল সরকারি কর্মচারী। আমাদের প্রায় ৯০% মানুষের মধ্যে ধারনা হয়ে আছে যে সরকারি কর্মচারীরাই শুধু পেনশন পাবার যোগ্য কিন্তু তা সত্য নয়। ২০০৯ সাল থেকে ভারতবর্ষে বসবাসকারী ১৮-৬৫ বছরের যেকোন নাগরিক পেনশন স্কিমে(NPS scheme) সাবস্ক্রাইব করলে ৬০/৭০ বছরের পর থেকে পেনশন পাবেন।

NPS কী?

NPS National Pension Scheme. জাতীয় পেনশন প্রকল্প হল কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনস্থ অবসরকালীন সুরক্ষা যোজনা প্রকল্প(NPS scheme)।এই প্রকল্পটি ১লা জানুয়ারী ২০০৪ সাল থেকে শুরু হয়। প্রথম অবস্থায় এই প্রকল্পের আওতায় শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীরা পরতেন, তবে সশস্ত বাহিনী ছাড়া। ২০০৯ সাল থাকে এই প্রকল্পটির আওতায় ১৮ থেকে ৬৫ বছরের সকল ভারতীয় নাগরিককে আনা হয়। ন্যাশনাল পেনশন প্রকল্পটির নিয়ন্ত্রন করেন PFRDA (pension fund regulatory & development authority)

ন্যাশনাল পেনশন (NPS scheme) স্কিম কী?

মাত্র ১০০০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০০ টাকা বা তারও বেশি চাইলেই প্রতি মাসে জমা করতে পারেন। আপনি এবং স্ত্রীর ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে পারবেন,কারণ আর্থিকভাবে সুরক্ষিত রাখা পরিবারের কর্তার দায়িত্ব থাকে। তাই নিয়মিত মাসিক আয়ের ব্যবস্থা করাটা খুবই প্রয়োজনীয় এবং সেই কথা ভেবেই এনপিএস সিস্টেমটি (NPS scheme)করা হয়েছে।যেখানে একজন ব্যক্তি ৬০ বছর বয়সে পৌঁছানোর পর পেনশন পেতে শুরু করবেন।

ন্যাশনাল পেনশন স্কিমে-এ (NPS scheme) ইনভেস্ট করে আপনি নিজে এবং আপনার স্ত্রীকে আত্মনির্ভর করে তুলতে পারবেন। কারণ ন্যাশনাল পেনশন স্কিমে আপনার স্ত্রীর নামে নিউ পেনশন সিস্টেম অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। এবং স্ত্রীর বয়স ৬০ বছর হলেই একবারে টাকা পাওয়া যাবে। এছাড়া প্রতিমাসে পেনশন বাবদও একটা ইনকাম হবে। প্রধানমন্ত্রীর এই স্কিমে আপনি নিজেই ঠিক করতে পারবেন যে আপনার স্ত্রী কত টাকা পেনশন পাবেন। যার ফলে ৬০ বছর বয়সের পর পেনশনের জন্য আপনার স্ত্রীকে আর কারোর উপর নির্ভর করতে হবে না।

৫ হাজার টাকা বিনিয়োগে কত পেনশন পাবেন?

যদি আপনার স্ত্রীর বয়স ৩০ বছর হয় এবং আপনি NPS অ্যাকাউন্টে প্রতি মাসে ৫০০০ টাকা বিনিয়োগ করেন এবং ৩০ বছরের জন্য বিনিয়োগ চালিয়ে যান। অর্থাৎ ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত আপনি যদি সেই বিনিয়োগে ১০% রিটার্ন পান, তাহলে ৬০ বছর বয়সে আপনার NPS অ্যাকাউন্টে মোট ১.১২ কোটি টাকা জমা হবে। নিয়ম অনুসারে আপনার স্ত্রীর বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আপনি ৪৫ লক্ষ টাকা একক নগদ পাবেন। এছাড়াও প্রতি মাসে ৪৫০০০ টাকা পেনশন পাবেন। যেখানে বিনিয়োগকারী ৩০ বছরে মোট ১৮ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করবে। এতে বার্ষিক ১০ শতাংশ রিটার্ন ধরা হয়েছে।

মাসিক ৫০ হাজার পেনশনের জন্য কত বিনিয়োগ করতে হবে?

আপনি চান আপনার স্ত্রী বা পরিবারের কোনো সদস্য ৬০ বছর বয়সের পর প্রতি মাসে ৫০ হাজার পেনশন পান। আপনি যাকে পেনশন দিতে চান, তাঁর বয়স যদি ৩৫ বছর হয়, তাহলে আপনাকে ২৫ বছরের জন্য এই প্রকল্পে বিনিয়োগ করতে হবে। এই পরিস্থিতিতে, আপনি যদি প্রতি মাসে ১৫ হাজার টাকা NPS-এ বিনিয়োগ করেন, তবে ২৫ বছর পরে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি প্রতি মাসে ৫০ হাজারের বেশি পেনশন পাবেন।

আপনি আপনার সুবিধা অনুযায়ী প্রতি মাসে বা বছরে নতুন পেনশন সিস্টেম (NPS) অ্যাকাউন্টে টাকা জমা করতে পারেন। আপনি এই স্কিমে (NPS scheme) কীভাবে বিনিয়োগ করবেন তা আপনার উপর নির্ভর করে। আপনি চাইলে মাত্র ১০০০ টাকা দিয়ে স্ত্রীর নামে একটি NPS অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন। NPS অ্যাকাউন্ট ৬০ বছর বয়সে পরিপক্ক হয়। নতুন নিয়মে, আপনি চাইলে স্ত্রীর বয়স ৬৫ বছর না হওয়া পর্যন্ত NPS অ্যাকাউন্ট চালাতে পারবেন।

ইতিমধ্যেই এতে কোটি কোটি মানুষ বিনিয়োগ করেছেন। তাই চটজলদি যারা করেননি আজই করে ফেলুন, যাতে করে আপনি ভবিষ্যতে অনুপস্থিতি থাকলেও পরিবার সুরক্ষিত থাকবে। তাই আর দেরি না করে স্ত্রীর নামে ইতিমধ্যে খুলে ফেলুন একটি অ্যাকাউন্ট, যাতে আপনি আপনার সুবিধামতো টাকা জমা করতে পারবেন।৬০ বছর পর স্ত্রীকে আর কারোর উপর নির্ভর করতে হবে না।আপনার স্ত্রীও আত্মনির্ভর হয়ে উঠতে পারবেন(NPS scheme)।

Related Articles

Back to top button