৫ মিনিটে জন্ম সার্টিফিকেট পান, কোন ভেরিফিকেশন করতে হবে না! কিভাবে সম্পূর্ন পদ্ধতি জেনে নিন

Advertisement

ভারতীয় আইন অনুযায়ী Birth Certificate একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট। যে কোন শিশুর কাছে নিজের জন্ম প্রমাণপত্র অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি নথি। এটি এমন একটি প্রমাণপত্র যার মাধ্যমে একজন ব্যক্তির জন্ম তারিখ, বয়স, নাম এবং ব্যক্তির জন্মস্থান চিহ্নিত করা হয়। যে কোন সরকারী হোক বা বেসরকারী অনেক কাজেই জন্ম সার্টিফিকেট লাগে। এমনকি যে কোন নাগরিকের ক্ষেত্রে Birth Certificate-কে একটি বাধ্যতামূলক ডকুমেন্ট হিসাবে বিবেচিত করা হয়েছে।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now
এই ধরনের আরো প্রতিবেদন পড়তে হলে আমাদের সঙ্গে যুক্ত হন।
হোয়াটস্যাপ গ্রুপেযুক্ত হন
টেলিগ্রাম চ্যানেলেযুক্ত হন
Google News – এযুক্ত হন

জন্ম সার্টিফিকেটের (Birth Certificate) কি কি কাজে লাগে ?
১) স্কুলে ভর্তির সময় এবং স্কলারশিপের জন্য লাগে।
২) আইনি বয়স নির্ধারণ করতে লাগে।
৩) রেশন কার্ড, প্যান কার্ড, আধার কার্ড ইত্যাদির আবেদন ও সংশোধন করতে লাগে।
৪) আবাসিক প্রমাণপত্রের জন্যও লাগে।
৫) বিবাহ প্রমাণপত্রের আবেদন করতে লাগে।
৬) এছাড়াও অন্যান্য সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পেতে জন্ম প্রমাণপত্র কাজে লাগে।

Advertisement

কোন শিশু যখন সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতালে জন্মগ্রহণ করে, জন্মের পরে সেই শিশুর জন্ম প্রমাণপত্র / Birth Certificate হাসপাতাল থেকেই দেওয়া হয়। কিন্তু অনেক সময় এমনও হয় যে শিশুটি বাড়িতে বা এমন কোনো স্থানে জন্মগ্রহণ করে তাহলে সেক্ষেত্রে তাকে জন্ম প্রমাণপত্র পাওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে। খুব সহজেই অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারেন। আবেদন করার সম্পূর্ন পদ্ধতিটি দেখে নিন-

Advertisement

জন্ম সার্টিফিকেটের (Birth Certificate) আবেদন পদ্ধতি-
১) সবার প্রথমে janma-mrityutathya.wb.gov.in -এই ওয়েবসাইটে যেতে হবে।
২) এরপর উপরে তিনটি লাইন বিশিষ্ট মেনু বার চিহ্নে ক্লিক করতে হবে।
৩) এরপরে Citizen Services-এ গিয়ে Birth সেকশনের মধ্যে “Apply for New Registration” অপশনে ক্লিক করতে হবে।
৪) এরপরে নিজের মোবাইল নাম্বারটি লিখে Get OTP অপশনে ক্লিক করতে হবে। এবার মোবাইলে আসা OTP লিখে Submit OTP অপশনে ক্লিক করতে হবে।
৫) এবার “Information of the Child / শিশুর তথ্য” -এ শিশুর নাম, জন্মতারিখ ইত্যাদি তথ্য পূরণ করতে হবে।
৬) এরপরে “Place of Birth / জন্মের স্থান” -এ শিশুটি কোন হাসপাতালে / নার্সিংহোমে জন্মগ্রহণ করেছিল, সেখানকার রাজ্য, জেলা, গ্রামীণ / শহরাঞ্চল এলাকা, ব্লক / পৌরসভা, হাসপাতাল বা নার্সিংহোমের নাম ইত্যাদি সবকিছু তথ্য দিতে হবে।

৭) এরপরে শিশুটির বাবা ও মায়ের নাম, মোবাইল নাম্বার, আইডি প্রুফ হিসেবে আধার কার্ড / ভোটার কার্ড / রেশন কার্ডের নাম্বারের মধ্যে যে কোনো একটি সিলেক্ট করে উক্ত ডকুমেন্টসটির নাম্বার লিখে দেবেন।
৮) এরপরে “Present Address of mother at the time of the child’s birth” -এ শিশুটির জন্মের সময় মায়ের ঠিকানা তথা রাজ্য, জেলা, ব্লক / পৌরসভা, পোস্ট অফিস, পিন কোড ইত্যাদি সমস্ত তথ্য দিয়ে সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে।
৯) এরপরে “Permanent Address of mother / মাতার স্থায়ী ঠিকানা” – এ মায়ের স্থায়ী ঠিকানা একইভাবে লিখবেন। যদি Present Address এবং Permanent Address একই থাকে তাহলে ‘Please check if permanent address is same as above address’ -এই অপশনে টিক করে দিতে হবে। আর যদি না হয় তবে টিক না করে নিচের তথ্য পূরণ করতে হবে।
১০) এবার “Statistical Information /পরিসংখ্যানগত তথ্য” -এ বাবা মায়ের ধর্ম, তাদের শিক্ষাগত মান, তাদের পেশা ইত্যাদি দিয়ে পুরণ করতে হবে।

১১) এরপরে “Other Information” -এ প্রসবের প্রকৃতি, প্রসবকালীন পরিচর্যা, প্রসবের পদ্ধতি, জন্মের সময় শিশুর ওজন স্থিতিকাল ইত্যাদি তথ্য দিতে হবে।
১২) সর্বশেষে “Upload Documents” ডিসচার্জ সার্টিফিকেট (Discharge Certificate), পারমিশন সার্টিফিকেট ও পেমেন্ট চালান আপলোড করে Submit করে দিলেই Birth Certificate আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবে।
১৩) আবেদন সম্পন্ন হয়ে গেলে একটি Acknowledgement Number দেখতে পাবেন, সেটিকে নোট করে রাখবেন।পরে এই Acknowledgement Number দিয়ে শিশুটির জন্ম সার্টিফিকেটের আবেদনের স্ট্যাটাস চেকও করতে পারবেন।

জন্ম সার্টিফিকেটের (Birth Certificate) আবেদনের জন্য যে যে ডকুমেন্টগুলি লাগবে?
১) যেখানে শিশুর জন্ম হয়েছে সেই চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান দ্বারা জারি করা জন্মস্থানের প্ৰমাণপত্ৰ।
২) শিশুর অভিভাবক অর্থাৎ বাবা-মায়ের পরিচয়পত্র।
৩) বাবা-মায়ের বিবাহের প্রমাণপত্র।
৪) শিশুর জন্ম তারিখ এবং শিশুর নাম।
৫) বাবা-মায়ের ঠিকানার প্রমাণপত্র।

জন্ম সার্টিফিকেট (Birth Certificate Status Check) আবেদনের স্ট্যাটাস চেক করবেন কিভাবে?

জন্ম সার্টিফিকেটের স্ট্যাটাস চেক করার জন্য নিম্নলিখিত পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে-
১) প্রথমে janma-mrityutathya.wb.gov.in ওয়েবসাইটে যেতে হবে।
২) এখানে মেনুবারে থাকা Birth অপশনের মধ্যে Track Application অপশনে ক্লিক করতে হবে।
৩) এবার Acknowledgement নাম্বারটি লিখে Submit অপশনে ক্লিক করতে হবে। এভাবে খুব সহজেই জন্ম সার্টিফিকেট আবেদনের স্ট্যাটাস চেক করতে পারবেন।

অনলাইনে জন্ম সার্টিফিকেট (Birth Certificate Download) ডাউনলোড করার পদ্ধতি:-
অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম সার্টিফিকেট ডাউনলোড করতেও পারবেন।স্ট্যাটাস চেক করার সময় যদি Approved লেখা থাকে, তাহলে বুঝবেন আপনার শিশুর জন্ম সার্টিফিকেট তৈরী হয়ে গিয়েছে। এরপর ডাউনলোড অপশনে ক্লিক করে সার্টিফিকেটটি ডাউনলোড করে নেবেন।

প্রতিটি নাগরিকদের জন্য জন্ম প্রমাণপত্র একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টস। আপনার শিশুর জন্ম সার্টিফিকেট আছে কি?যদি না থাকে তাহলে এই সহজ পদ্ধতির মাধ্যমে এক্ষুনি আবেদন করে ফেলুন।

আরও পড়ুন- বিরাট ঘোষণা করল কেন্দ্র সরকার! রান্নার গ্যাসে ২০০ টাকা ভর্তুকি মিলবে

এই ধরনের আরো প্রতিবেদন পড়তে হলে আমাদের সঙ্গে যুক্ত হন।
হোয়াটস্যাপ গ্রুপেযুক্ত হন
টেলিগ্রাম চ্যানেলেযুক্ত হন
Google News – এযুক্ত হন
Advertisement