নিউজ

Dearness allowance: রাজ্যে ডিএ মামলায় নয়া মোড়!কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশের পুনর্বিবেচনার আর্জি রাজ্যের

গত মে মাসে এই মামলায় রায় দিয়েছিল বিচারপতি হরিশ টন্ডন এবং বিচারপতি রবীন্দ্রনাথ সামন্তর ডিভিশন বেঞ্চে।

Dearness allowance: দীর্ঘদিনের ডিএ (dearness allowance) বঞ্চনার শিকার রাজ্যের সরকারী কর্মচারীরা। কিন্তু রাজ্য সরকার মুখ ফিরে তাকায়নি সরকারী কর্মচারীদের দিকে। ফলে কর্মচারীদের বাধ্য হয়ে আদালতের দ্বারস্থ হতে হয়েছে।কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিল তিন মাসের মধ্যে বকেয়া ডিএ বা মহার্ঘ ভাতা রাজ্য সরকারি কর্মীদের মিটিয়ে দিতে হবে। একই সঙ্গে এটাও বলা হয়েছিল, ডিএ হল একজন কর্মচারীর মৌলিক অধিকার।

গত মে মাসে এই মামলায় রায় দিয়েছিল বিচারপতি হরিশ টন্ডন এবং বিচারপতি রবীন্দ্রনাথ সামন্তর ডিভিশন বেঞ্চে। কেন্দ্রীয় হারে মহার্ঘ ভাতা (ডিএ) দিতে হবে, এই দাবিতে দীর্ঘ দিন আইনি লড়াই চালাচ্ছেন রাজ্যের সরকারি কর্মীরা। গত ২০ মে কলকাতা হাই কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিল, তিন মাসের মধ্যে বকেয়া ডিএ (dearness allowance) মেটাতে হবে রাজ্যকে। সেই সময় প্রায় শেষ হতে চলল।

আরও পড়ুন :  দুয়ারে সরকারের পর এবার নতুন প্রকল্প "পাড়ায় পাড়ায় সমাধান", ঘােষণা মুখ্যমন্ত্রীর

আগামী ১৯ অগাস্টের মধ্যে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ৩১ শতাংশ ডিএ বা মহার্ঘ ভাতা মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয় কলকাতা হাইকোর্টের তরফে। সেই সময়সীমা পেরিয়ে গেলেই আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করা হতে পারে।কলকাতা হাইকোর্টের দেওয়া সেই সময়সীমা আগামী ২০ অগাস্ট শেষ হয়ে যাচ্ছে। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী এই সময়ের মধ্যেই বকেয়া ডিএ (dearness allowance) মেটানোর কথা রাজ্য সরকারের। তবে তার আগে ফের একবার আদালতের দ্বারস্থ হল রাজ্য।

রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ (dearness allowance) মামলায় নয়া মোড়! কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশের পুনর্বিবেচনার আর্জি জানাল রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার একটি রিভিউ পিটিশন দাখিল করে রাজ্য। আগের নির্দেশ পুনর্বিবেচনা করার আর্জি জানিয়ে আদালতের দরজায় গেল নবান্ন। বৃহস্পতিবারই তারা রিভিউ পিটিশন দাখিল করেছিল। শুক্রবার এই মামলায় রাজ্যের আবেদন গৃহীত হল কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে।

এই ডিএ মামলায় রাজ্য সরকারের পদক্ষেপ নিয়ে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন সরকারি কর্মচারীদের প্রতি রাজ্য সরকার সহানুভূতিশীল। কিন্তু রাজ্য সরকারের আর্থিক অবস্থাও বিবেচনা করে দেখতে হবে। হাইকোর্টের তো টাকা জোগাড় করার দায় নেই, তারা রায় দিয়েই খালাস। রাজ্য সরকারকে তো তহবিলের দিকটা দেখতে হবে। ডিএ বাকি রয়েছে, কর্মীদের দাবিও সরকার বোঝে। কিন্তু বিষয়টা আর একটু খতিয়ে দেখা দরকার বলেই পিটিশন দাখিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার অনলাইনে রিভিউ পিটিশন দাখিল করার কাজ সম্পন্ন করেছে রাজ্য সরকার। এই ডিএ মামলা পুর্নির্ববেচনার আর্জি জানায় রাজ্য সরকার। শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ রিডিউ পিটিশন গ্রহণ করেছে। যদিও এই মামলায় এখনও মামলাকারীদের নোটিশ দেওয়া হয়নি। আদালত এ ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত জানায় সেটাই দেখার। এখন শুধু আদালতের রায়ের অপেক্ষা রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ (dearness allowance) মামলা কোন দিকে মোড় নেয়।

Related Articles

Back to top button