India Post Scheme: পোস্ট অফিসের দুর্দান্ত স্কিম! মাত্র ৩৩৩ টাকা বিনিয়োগ করে লাখপতি হয়ে যান

Advertisement

India Post Scheme: নিজেদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে সকলেই বিনিয়োগের কথা ভাবেন। যাতে জীবনের পরবর্তী সময়ে আর্থিক দিক থেকে কোনো অসুবিধার সম্মুখীন হতে না হয়। যার ফলে বাজারে প্রচুর বিনিয়োগের ক্ষেত্র থাকলেও তাতে ঝুঁকির আশঙ্কাও থেকে যায়। যে কারণে বিনিয়োগকারীরা স্বাভাবিকভাবেই ভয় পান।তবে প্রত্যেকের কাছেই বিনিয়োগের জন্য পোস্ট অফিস নিঃসন্দেহে একটি নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

এই সংস্থা বছরের পর বছর ধরে লক্ষ লক্ষ গ্রাহককে পরিষেবা দিচ্ছে। পাশাপাশি এখানে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কোনো ঝুঁকির আশঙ্কাও থাকেনা। তাই গ্রাহকেরা স্বতঃস্ফূর্তভাবেই এখানে বিনিয়োগ করেন। যারা কম ঝুঁকি সহ বিনিয়োগ করে মুনাফা করতে আগ্রহী, তারা পোস্ট অফিস দ্বারা প্রকাশিত স্কিমগুলির কথা ভেবে দেখতে পারেনা অতি কষ্টে সঞ্চয় করা অর্থ নিরাপদ হাতে রাখতে চান সবাই।

Advertisement

পোস্ট অফিস ক্ষুদ্র সঞ্চয় (India Post Scheme) প্রকল্পগুলি দীর্ঘমেয়াদে সাধারণ মানুষের জন্য অনেক সাহায্য করে। অত্যন্ত লাভজনক স্কিম চালু রয়েছে পোস্ট অফিসে। এই প্রকল্পে আপনার অর্থ পোস্ট অফিসে সম্পূর্ণ নিরাপদ থাকবে। সুতরাং আপনি কোনও ঝুঁকি ছাড়াই এতে আপনার অর্থ বিনিয়োগ করতে পারেন এবং আপনার ও আপনার পরিবারের ভবিষ্যত সুরক্ষিত করতে পারেন।

Advertisement

মধ্যবিত্ত সমাজের কাছে টাকা জমা রাখার ভালো অপশন হচ্ছে পোস্ট অফিস। এর বিভিন্ন প্রকল্পে মেলে ভালো রিটার্ন আর তার সাথে রয়েছে নিরাপত্তা।সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখে পোস্টঅফিসগুলি বেশ কিছু স্কিম এনেছে (India Post Scheme)। যাতে সাধারণ মানুষ তাদের কষ্টার্জিত সঞ্চয় নিরাপদে বিনিয়োগ করতে পারবে এবং তাদের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করতে পারবে। এই স্কিমগুলির মাধ্যমে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পগুলি দীর্ঘমেয়াদি ভালো অঙ্কের রিটার্ন  (India Post Scheme) এনে দেয় সাধারণ মানুষের কাছে।

পোস্ট অফিসের এরকমই একটি স্কিম হলো (India Post Scheme), পোস্ট অফিস রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট (RD)। এই স্কিমে সর্বনিম্ন মাসিক ১০০ টাকা থেকে বিনিয়োগ করা যায়। সর্বোচ্চ যতো খুশি টাকা মাসিক বিনিয়োগ করা যাবে। এছাড়াও অ্যাকাউন্ট খোলার ১ বছরের মধ্যে ডিপোজিট ব্যালেন্সের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত তুলে নেওয়া যাবে। এই স্কিম থেকে ৫.৮ শতাংশ হারে চক্রবৃদ্ধি সুদ পাওয়া যাবে।

পোস্ট অফিসের ৩৩৩ টাকার স্কিম (India Post Scheme)?

পোস্ট অফিসের এই স্কিমটিতে যদি দৈনিক ৩৩৩ টাকা করে। অর্থাৎ মাসিক ১০ হাজার টাকা জমা করা যায়, তবে ১ বছরের মোট বিনিয়োগের পরিমাণ হবে ১.২০ লক্ষ টাকা। যা ১০ বছরে হবে ১২ লক্ষ টাকা। এরসাথে ১০ বছরের সুদের পরিমাণ হবে ৪ লক্ষ ২৬ হাজার ৪৭৬ টাকা (৪,২৬,৪৭৬ টাকা)। সবমিলিয়ে ১০ বছর পর বিনিয়োগকারী পেয়ে যাবে ১৬ লক্ষ টাকারও বেশি। যদিও রেকারিং ডিপোজিটটির মোট সময়কাল ৫ বছর হলেও বিনিয়োগকারী চাইলে তা পরবর্তী ৫ বছরের জন্যে বাড়িয়ে নিতে পারবে।

অর্থাৎ‍ প্রতিদিন ৩৩৩ টাকা বিনিয়োগ করলে ম্যাচুরিটি হলে রিটার্ন পাওয়া যাবে ১৬ লক্ষ টাকারও বেশি। এইসব স্কিমের ক্ষেত্রে ব্যাংকের তুলনায় সুদের হার বা ইন্টারেস্ট বেশি দেয় পোস্ট অফিস। এই স্কিমটি যথেষ্টই লাভজনক এবং সাধারণ মানুষের জন্য ভাল স্কিম (India Post Scheme) ।স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছে যে এটি একটি লাভজনক স্কিম। এখনও পর্যন্ত বহু মানুষ এই স্কিমে বিনিয়োগ করেছেন।

তবে এই স্কিমে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে প্রতি মাসে মাসে টাকা জমা অর্থাৎ ডিপোজিট করতে হবে। পরপর ৪ মাস মাসিক ইনস্টলমেন্ট জমা না দিলে রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্টটি বন্ধ হয়ে যাবে।তা পুনরায় চালু করতে চাইলে ২ মাসের মধ্যে ১ শতাংশ পেনাল্টি দিয়ে অ্যাকাউন্টটি আবার চালু করতে হবে।সাধারণ ব্যাঙ্কের থেকে সুদের হার বেশি থাকে পোস্ট অফিসের। সেই কারণেই পোস্ট অফিসের বিভিন্ন স্কিমগুলি (India Post Scheme) গ্রাহকরা বেশি পছন্দ করেন।

Advertisement