“ডিজিটাল ইন্ডিয়া – ২০২২” তকমা পাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের “দুয়ারে সরকার প্রকল্প”।

বর্ষশেষের সেরা চমক, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের “দুয়ারে সরকার প্রকল্প”

১লা ডিসেম্বর,২০২০ সালে পশ্চিমবঙ্গের বুকে “দুয়ারে সরকার” প্রকল্পটি প্রথম চালু করা হয়। হ্যাঁ,২০২০ সাল অর্থাৎ, সেই Covid-এর সময়কাল। সেই সময় মানুষ একপ্রকার হতাশায় ভুগছিলেন, লকডাউনের রেশ ততদিনে কেটে গিয়েছিল ঠিক কথা, কিন্তু, Covid-এর জন্য মানুষের দুঃখ-কষ্ট তখনও পুরোপুরি লাঘব হয়ে যায়নি।

এই সময় এগিয়ে এসেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, সাধারণ মানুষের প্রতি বাড়িয়ে দিয়েছিলেন তার সাহায্যের হাত। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-এর এই “দুয়ারে সরকার” প্রকল্পের অধীনে রয়েছেন প্রায় ৬ কোটি ৬০ লক্ষ মানুষ। গত ১লা ডিসেম্বর,২০২০ থেকে ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ পর্যন্ত মানুষ এই প্রকল্পের অধীনে থাকা সমস্ত পরিষেবাগুলি উপভোগ করেছেন।

Advertisement

WBBPE Primary Scam – প্রাথমিকের শিক্ষক দুর্নীতির দায়ে চাকরি যাবে প্রায় ৩০ হাজার জনের জানিয়ে দিয়েছেন কলকাতা হাইকোর্ট।

এর জন্য এখন প্রতিটি লোকালয়ে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প-এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এই উদ্দেশ্যে সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে চালু হয়েছে মোবাইল অ্যাপও। কিন্তু, সাধারণ মানুষের কথা ভেবে আরও কিছুদিন ছাড় দেওয়া হয়। প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হবে আগামী ৩১শে ডিসেম্বর,২০২২ সালে। রাজ্য সরকারের একাধিক প্রকল্পের মধ্যে এই “দুয়ারে সরকার” প্রকল্পটি সেরার সেরা হয়ে উঠেছে।

এর আগে অন্য কোনো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এইরূপ জনকল্যাণমূলক প্রকল্পের নির্মাণ করে উঠতে পারেননি। মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-এর এই “দুয়ারে প্রকল্প”-এর জন্য এ রাজ্যের হাজার -হাজার মানুষ উপকৃত হয়েছেন, মনে-প্রাণে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীকে।

মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই অভূতপূর্ব প্রকল্পটি ইতোমধ্যেই রাজ্যে খুব কম সময়ে অধিক সুনাম অর্জন করেছে। সেই সুবাদে আগামী ৭ই  জানুয়ারি,২০২৩ সালে জাতীয় স্তরে পুরস্কৃত হতে চলেছেন পশ্চিমবাংলার গর্ব মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঐ দিন দেশের রাষ্ট্রপতি শ্রীমতি দ্রৌপদী মুর্মু রাজধানী দিল্লির বিজ্ঞান ভবনে “Digital India-2022” সেরা তকমাটি তুলে দিতে চলেছেন তাঁর হাতে।

প্রকল্পের মূল লক্ষ্য ছিল রাজ্যের সাধারণ মানুষ ও গ্ৰামের প্রতিটি মানুষের দুয়ারে-দুয়ারে অর্থাৎ, ঘরে-ঘরে সরকারি সুবিধা পৌঁছে দেওয়া। এই প্রকল্প থেকে মানুষ খাদ্যসাথী,শিক্ষাশ্রী,কন্যাশ্রী,রূপশ্রী, স্বাস্থ্যসাথী,জয় জোহার,তপশিলি বন্ধু পেনশন প্রকল্প সহ নানারূপ সুবিধা পেয়ে থাকেন।

Free Ration – নতুন বছরে বিনামূল্যে রেশন ? কি বলছে রাজ্য সরকার?

১৯শে ডিসেম্বর,২০২২ এ ঘোষিত হয়, খুব শীঘ্রই এই প্রকল্পটি “Public Digital Platform” পুরস্কারটি  অর্জন করতে চলেছে। পুরস্কারটি দেবে কেন্দ্র সরকারের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রক।
এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবরের আপডেট সবার আগে পেতে হলে এই ওয়েবপোর্টালটি ফলো করতে ভুলবেন না।
Written by Arpita Sen.

সকালের বার্তার নিউজ সবার আগে পেতে Follow করুন সকালের বার্তার গুগল নিউজ, সকালের বার্তা ফেসবুক পেজ, সকালের বার্তা টেলিগ্রাম গ্রুপ ও WhatsApp Group.

Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *