Unemployment Allowance – শিক্ষিত বেকারদের জন্য সুখবর ! পাবেন প্রতিমাসে ২৫০০ টাকা, দেবে সরকার।

Advertisement

Unemployment Allowance – ভারতবর্ষে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। কেন্দ্র থেকে রাজ্য সরকার প্রত্যেকে মুখে বললে কেউই তাদের জন্য সেরাম কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না। যার ফলে প্রচুর বেকার ডিপ্রেশনেও চলে যাচ্ছে। ঠিক এমন অবস্থায় তাদের কথা ভেবে এক নতুন সিদ্ধান্ত নিল একটি রাজ্যের সরকার। যে সমস্ত বেকাররা চাকরি খুজছেন কিন্তু কোনভাবেই চাকরি পাচ্ছেন না তাদের জন্য এই নতুন সিদ্ধান্ত সরকারের।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

এই রাজ্যের সরকার এবার থেকে তাদের রাজ্যের বেকার যুবক যুবতীদের (Unemployment Allowance) দেবে মাসে আড়াই হাজার টাকা। কিছুদিনের মধ্যে এই টাকা দেওয়া শুরু হবে বলে জানিয়েছেন তারা। কিন্তু এই টাকা পেতে গেলে কি কি যোগ্যতা থাকা প্রয়োজন? সরকারি তরফে জানানো হয়েছে এই প্রকল্পের (Unemployment Allowance) টাকা পেতে গেলে তাকে অবশ্যই ছত্রিশগড়ের একজন স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। আবেদনকারীর বয়স কমপক্ষে ১৮ এবং সর্বোচ্চ 35 বছর হতে হবে।

আরও পড়ুন – WB job vacancy – বেকারদের জন্য সুখবর! রাজ্যে ১ লক্ষ ২৫ হাজার কর্মী নিয়োগ ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর।

Advertisement

শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসাবে তাকে যে কোন স্বীকৃত বোর্ড থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করতে হবে। এবং এক্সচেঞ্জ এর খাতায় অবশ্যই তার নাম থাকতে হবে । তবে আবেদন করলেই সবাই এই প্রকল্পের (Unemployment Allowance) টাকা পাবেন না এই প্রকল্পের টাকা দেওয়ার আগে সরকার বেশ কিছু জিনিস মাথায় রাখবে। প্রথমেই তারা দেখবে আপনার আর কোন ইনকাম করার অপশন আছে কিনা। দ্বিতীয়তঃ আপনার পরিবারের বার্ষিকায় আড়াই লক্ষ টাকার কম কিনা আপনার পরিবারের বার্ষিক আড়াই লক্ষ টাকার বেশি হলে আপনি কখনো এই প্রকল্পের টাকা পাবেন না।

Advertisement

Unemployment Allowance Of Rs 2,500 Per Month.

এই প্রকল্পের আবেদন করার তারিখের এক বছরের মধ্যের তৈরি করা একটি ইনকাম সার্টিফিকেট আবেদনের সময় অবশ্যই জমা করতে হবে। যদিও এর আগে পশ্চিমবঙ্গে বেকার ভাতা (Unemployment Allowance) শুরু করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার রাজ্যের বেকার যুবকদের কথা মাথায় রেখে এই প্রকল্প বহুদিন আগেই শুরু করেছিল। বহু বেকার যুবক যুবতী এই প্রকল্পের আওতায় প্রতি মাসে ১৫০০ টাকা করে পেয়ে থাকেন।

এছাড়াও বাড়ির গৃহলক্ষীদের জন্য লক্ষীর ভান্ডারও শুরু করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। বাড়ির গৃহলক্ষী অর্থাৎ গৃহবধূরা যাতে কোনো কারণে অর্থের অভাব বোধ না করেন সে কারণেই এই প্রকল্প শুরু করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এছাড়াও মেয়েদের স্কুলছুট হওয়া কমাতে কন্যাশ্রী প্রকল্প বিশ্বের দরবারে সুনাম কুড়িয়েছে।

আরও পড়ুন – Madhyamik syllabus update – বদলে যাচ্ছে মাধ্যমিকের সিলেবাস! কি কি পরিবর্তন হতে পারে দেখুন।

Advertisement
JoinJoin