টেক গাইড

Job Card: নতুন জব কার্ড বানাবেন কি? এক সপ্তাহেই হাতে পাবেন জব কার্ড, আবেদন করার পদ্ধতি

জব কার্ডের মাধ্যমে দরিদ্র এবং শ্রমিক পরিবারগুলিতে যেমনভাবে কর্মসংস্থান প্রদান করা সম্ভব হয়েছে, ঠিক তেমনভাবেই স্ত্রী-পুরুষ নির্বিশেষে বৈষম্য মিটিয়ে কার্য সম্পাদন এবং সমাজের এই দরিদ্র পরিবারগুলিকে সাহায্য করা সম্ভবপর হয়েছে।

Job Card: বর্তমান সময়ে প্রায় প্রত্যেকটা মানুষের কাছেই জব কার্ড রয়েছে। ভারত সরকারের তরফে ভারতীয় শ্রমিকদের সামাজিক নিরাপত্তা এবং অধিকার রক্ষার খাতিরে জব কার্ড প্রদান করা হয়ে থাকে। মূলত গ্রামীণ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে এটি বিশেষভাবে পরিলক্ষিত হয়। জব কার্ডের মাধ্যমে দরিদ্র এবং শ্রমিক পরিবারগুলিতে যেমনভাবে কর্মসংস্থান প্রদান করা সম্ভব হয়েছে, ঠিক তেমনভাবেই স্ত্রী-পুরুষ নির্বিশেষে বৈষম্য মিটিয়ে কার্য সম্পাদন এবং সমাজের এই দরিদ্র পরিবারগুলিকে সাহায্য করা সম্ভবপর হয়েছে।

জব কার্ড (Job Card) কি?

মহাত্মা গান্ধী ন্যাশনাল রুরাল এপ্লয়মেন্ট গ্যারান্টি অ্যাক্ট (MGNREGA) এর অন্তর্গত ভারতীয় শ্রমিকদের এই জব কার্ড প্রদান করার একমাত্র উদ্দেশ্য হল যাতে শ্রমিক পরিবারগুলির যে কোনো একজন সদস্যকে একটি আর্থিক বছরে অন্তত পক্ষে ১০০ দিনের কর্মসংস্থান প্রদান করা।বর্তমানে ১০০ দিনের কাজের সুবিধা পেতে জব কার্ডের প্রয়োজন হয়।

জব কার্ডের মাধ্যমে কি কাজ করা যায়?

জব কার্ডের মাধ্যমে শ্রমিকদের দ্বারা বিভিন্ন কাজ করানো হয়। যেমন- খাল খোড়া, পুকুর, রাস্তা সংস্করণ এর পাশাপাশি পরিবেশ রক্ষা সংক্রান্ত নানা কাজ করা হয়ে থাকে।

আরও পড়ুন :  অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের ব্যাংকিং ডিটেলস হাতিয়ে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খালি করে দিতে পারে Escobar ম্যালওয়্যার

জব কার্ডের মাধ্যমে আপনারা কি কি সুবিধা পেতে চলেছেন?

১) যে সকল ব্যক্তিদের জব কার্ড রয়েছে তারা চাকরি পাওয়ার অধিকার কার্ড পাবেন।

২)এর পাশাপাশি জব কার্ড থাকা সত্ত্বেও যদি আবেদন করার ১৫ দিনের মধ্যে আপনি কাজ না পান তবে আপনি বেকারত্ব ভাতার সুবিধা পাবেন।

৩)যদি ৫ কিমি ব্যাসার্ধের বাইরে কাজ করার প্রয়োজন হয়, তবে আপনি ১০ শতাংশ অতিরিক্ত মজুরির অধিকার পাবেন।

৪)কাজ করার ক্ষেত্রে কিংবা চাকরির সময় আঘাত পেলে চিকিৎসার খরচ, প্রয়োজনে হাসপাতালে ভর্তির খরচ এবং আঘাতের কারণে কর্মক্ষেত্রে অক্ষমতা কিংবা মৃত্যুর ক্ষেত্রে এক্স গ্রেশিয়া পেমেন্ট প্রদান করা হবে সরকারের পক্ষ থেকে।

৫)এর পাশাপাশি কর্মীরা কর্মস্থলে প্রাথমিক চিকিৎসা, ক্রেচ এবং পানীয় জলের সুবিধা সহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সুবিধাগুলি পেয়ে যাবেন।

এই জব কার্ডের মাধ্যমে গ্রামীণ মহিলাদের ক্ষমতায়ন করা সম্ভব হয়েছে। ভারত সরকারের এই উদ্যোগ যাতে ভারতবর্ষের সমস্ত জেলাগুলিতে পৌঁছে যায় তার জন্য বিশেষভাবে নজর দেওয়া হয়ে থাকে। আপনার জব কার্ড আছে কি? যদি না থাকে তাহলে আপনিও জব কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারেন। কয়েকটি সরল প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আবেদন করতে পারেন।জব কার্ডের জন্য আবেদন করবেন কিভাবে দেখুন-

জব কার্ডের (Job Card) জন্য আবেদন করার পদ্ধতি:-

১) আপনার নিকটবর্তী দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প থেকে আপনি জব কার্ডের জন্য আবেদনের প্রয়োজনীয় ফর্মটি পেয়ে যাবেন।

২)ফর্মটিতে জেলার নাম, পরিবারের প্রধানের নাম, পরিবারের সমস্ত সদস্যদের নাম এবং সমস্ত তথ্য, রেশন কার্ড নম্বর সহ আবেদনকারীর বিভিন্ন ব্যক্তিগত তথ্যগুলো সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে। যাদের রেশন কার্ড নেই তারা ভোটার কার্ডে নম্বরও প্রদান করতে পারেন।

৩)এরপরে আপনার ঠিকানা, তপশিলি জাতি কিংবা উপজাতির সদস্য কিনা, ইন্দিরা আবাস যোজনার অনুদান পেয়ে থাকেন কিনা, ভূমি সংস্কার উপভোক্তা কিনা এই সমস্ত তথ্য গুলি সঠিকভাবে উল্লেখ করতে হবে।

৪)ফর্মটি সম্পূর্ণভাবে পূরণ করার পর পরিবারের যে সকল সদস্য কাজ করতে ইচ্ছুক তাদের সকলকে সাক্ষর কিংবা টিপসই প্রদান করতে হবে। এর পাশাপাশি পরিবারের প্রধানের স্বাক্ষর কিংবা টিপসই প্রদান করতে হবে।

৫)সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করে প্রয়োজনীয় নথিপত্র সহ ফর্মটি আপনার গ্রাম পঞ্চায়েতের অফিসে জমা করতে হবে।

জব কার্ডের (Job Card) জন্য আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নথিপত্ৰ :-

১)আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের ফটো।

২)রেশন কার্ডের প্রতিলিপি।

৩)ভোটার কার্ডের প্রতিলিপি।

৪)আধার কার্ডের প্রতিলিপি।

৫)আপনার বাড়ির জন্য যে ট্যাক্স প্রদান করা হয় তার রশিদ।

৬)ব্যাংকের পাশবইয়ের প্রথম পৃষ্ঠার প্রতিলিপি।

Related Articles

Back to top button