Lakshmir Bhandar Scheme: লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পে প্রতিমাসে ১০০০/ ১২০০ টাকা চান? তবে আগেই জমা করতে হবে এই ফর্ম

Advertisement

Lakshmir Bhandar Scheme 2024: পশ্চিমবঙ্গের জনসাধারণের জন্য একাধিক নতুন স্কিম চালু করেছে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর তরফে চালু হওয়া সমাজকল্যাণমূলক এই সকল প্রকল্পগুলি রাজ্যের গন্ডি পেরিয়ে দেশে সমাদৃত। এর মধ্যে একটি প্রকল্প হল লক্ষ্মীর ভাণ্ডার স্কিম (Lakshmir Bhandar Scheme)। বঙ্গলক্ষ্মীদের জন্য চালু হওয়া এই প্রকল্পে প্রতিমাসে একটি নির্দিষ্ট মূল্যের অর্থ আসে রাজ্যের মহিলাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now
Advertisement

এতদিন প্রতিমাসে পাঁচশো টাকা (Rs-500/-) করে ভাতা পাচ্ছিলেন মহিলারা। কিন্তু এবার থেকে এই মূল্য কিছুটা বৃদ্ধি করা হয়েছে। যার ফলে কার্যত খুশির জোয়ার রাজ্যে, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নয়া সিদ্ধান্ত মোতাবেক পাঁচশোর বদলে এখন থেকে ১০০০ টাকা করে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার ভাতা (Lakshmir Bhandar Scheme) পাচ্ছেন বঙ্গের মানুষ। এছাড়া সংরক্ষিত শ্রেণীর মহিলারা পাচ্ছেন ১২০০ টাকার ভাতা। কিন্তু কিভাবে মিলবে প্রতিমাসে এই টাকা? সবটা জানতে মন দিয়ে পড়ে নিন আজকের প্রতিবেদনটি।

Advertisement

আরও পড়ুন – LPG Cylinder Price: বিরাট খবর! রান্নার গ্যাসের দাম নিয়ে লোকসভা ভোটের আগেই বড় উপহার আমজনতার

West Bengal Lakshmir Bhandar Scheme 2024

পশ্চিমবঙ্গের মহিলাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রকল্প হলো লক্ষ্মীর ভাণ্ডার (Lakshmir Bhandar)। এই প্রকল্পে আবেদনের শর্ত হলো-

  • (ক) আবেদনরত মহিলাকে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  • (খ) আবেদনরত মহিলা সরকারি চাকুরিজীবী, সরকারি পেনশন গ্রাহক হলে চলবে না।
  • (গ) এই প্রকল্পে যে সকল মহিলা আবেদন জানাতে পারবেন, তাঁদের বয়স হতে হবে ২৫ বছর থেকে ৬০ বছর পর্যন্ত।

Lakshmir Bhandar Scheme Application Process 2024

পশ্চিমবঙ্গের Lakshmir Bhandar Prakalpa-এ নাম নথিভুক্ত করতে চাইলে প্রার্থীরা অনলাইনের মাধ্যমে অথবা দুয়ারে সরকার শিবিরের (Duare Sarkar Camp) থেকে আবেদন জানাতে পারবেন। সেক্ষেত্রে যে মহিলারা সংশ্লিষ্ট প্রকল্পে আবেদন জানাতে ইচ্ছুক, তাঁরা অনলাইন পোর্টাল অথবা দুয়ারে সরকার শিবিরে গিয়ে অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম নিয়ে আসবেন।

আরও পড়ুন – Laxmi bhandar New update: কবে থেকে মিলবে লক্ষ্মীর ভান্ডারের দ্বিগুণ টাকা? জানুন বিস্তারিত

তারপর ফর্মটি সঠিকভাবে ফিল আপ করে নেবেন। ফর্মে প্রতিটি ডিটেলস পূরণের সময় খেয়াল রাখবেন যাতে কোনো ভুল না হয়। নয়তো পরে সমস্যা হতে পারে। আবেদন পত্র ফিল আপ হলে যে যে ডকুমেন্টগুলি লাগবে সেগুলি ফর্মের সঙ্গে একত্র করে জমা দিন। ফর্ম জমা দেওয়া যাবে অনলাইনে অথবা দুয়ারে সরকার শিবির মারফত। অ্যাপ্লিকেশন জমা দেওয়া হলে কিছুদিন অপেক্ষা করবেন। অনলাইন মাধ্যমে আপনার অ্যাপ্লিকেশনের স্ট্যাটাস চেক (Laxmi Bhandar Application status check) করতে পারবেন।

লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের জন্য নতুন করে ফর্ম ফিল আপ করার প্রয়োজন আছে?

সম্প্রতি রাজ্য সরকার ঘোষণা করেছে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের টাকার পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন থেকে প্রতিমাসে ১০০০ ও ১২০০ টাকা পাবেন সুবিধাভোগীরা। এরপরই আবেদনকারী দের মনে প্রশ্ন জাগছে, তবে কি নতুন ফর্ম ফিল আপ করতে হবে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের জন্য? উত্তর হল না। লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের জন্য কোনও নতুন ফর্ম ফিল আপ করতে হবেনা। বরং যাঁরা আগে এই প্রকল্পের আওতায় ৫০০ টাকা এবং ১০০০ টাকা করে পাচ্ছিলেন, তাঁরা এবার থেকে ১০০০ টাকা ও ১২০০ টাকা করে পাবেন। প্রতি সুবিধাভোগীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে (Bank Account) সরাসরি এই অর্থ পাঠাবে রাজ্য সরকার। খুব সম্ভবত এপ্রিল মাস থেকেই নতুন নিয়মে অর্থ পাবেন তাঁরা।

Advertisement
About Author
Prabir Biswas

Prabir Biswas

আমি গত চার বছর ধরে সকালের বার্তা ডিজিটাল নিউজ মিডিয়ায় কাজের সঙ্গে যুক্ত আছি। আমি মুলত যেকোনো ধরণের জেনারেল নিউজ যেমন সরকারি চাকরির আপডেট, স্কলারশিপ, সরকারি প্রকল্প, অর্থনৈতিক, টেকনোলজি ইত্যাদি বিষয়ে লেখায় পারদর্শী।